পার্থর নতুন পন্থা উদ্ভাবন; অনলাইনে দেশ-বিদেশে থেকে জাকাত দেওয়া বা তোলা যাবে

প্রকাশঃ জুন ৭, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

এখন থেকে অনলাইন জাকাত প্রদান করা যাবে। নতুন এ  পন্থা উদ্ভাবন করলেন বাংলাদেশের আন্দালিব রহমান পার্থ। তিনি ব্যাংকিং পদ্ধতিতে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের মতো জাকাত কার্ডের ব্যবহারের উদ্ভাবন করেছেন।

এতে অনলাইনের মাধ্যমে দেশ-বিদেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে জাকাত দেয়া বা তোলা যাবে। আর এর মাধ্যমে জাকাতদাতা ও গ্রহীতার সঠিক হিসাব রাখা যাবে, যা ইতিমধ্যে সরকারের গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়েছে।

বুধবার তিনি তার ফেসবুকের ভেরিফায়েড পেজে এই উদ্ভাবনের প্যাটেন্টসহ সরকারের গেজেট প্রকাশের ছবি প্রকাশ করেছেন।

ইসলামের পাঁচটি মূল স্তম্ভের মধ্যে অন্যতম একটি হলো জাকাত। এখন থেকে ১ হাজার ৪০০ বছর আগে যেভাবে মুসলমানরা জাকাত দিতেন আজও তার কোনো পরিবর্তন নেই। ২০১৫ সাল থেকে আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে জাকাতব্যবস্থাকে সহজতর ও যুগোপযোগী করার চিন্তাভাবনা এবং এ বিষয়ে গবেষণা শুরু করেন ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ।

সারা বিশ্বে ব্যাংকিং লেনদেন যখন অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেমে চলছে সেখানে জাকাতকে কীভাবে যুক্ত করা যায় সে চিন্তা থেকে তিনি এই উদ্ভাবন করেন। আধুনিক ব্যাংকিং এ ডেবিট কার্ড এবং ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার দেখা গেলেও ডেবিট এবং ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে জাকাত প্রদানে ইসলামে কিছু প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। এসব কারণগুলো বিবেচনা করেই তিনি একটি স্বতন্ত্র জাকাত কার্ডের উদ্ভাবন করেন।

ইতিমধ্যে দেশের অন্যতম বৃহৎ একটি ইসলামী ব্যাংক তার এই জাকাত কার্ড নিয়ে কাজ শুরু করেছেন। এই জাকাত কার্ডের অনেক ধরনের ব্যবহার আছে। বাংলাদেশে যত মানুষ জাকাতপ্রাপ্য তাদের ডাটাবেইজ থাকবে যাতে বিদেশ থেকে যে কোনো প্রবাসী কিংবা দেশে বসেই যে কেউ ওই ওয়েবসাইটে গিয়ে তাদের পছন্দমতো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে জাকাত প্রদান করতে পারবে।

এছাড়াও ব্যাংকে যেমন ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড দেয়া হয় তেমন জাকাত কার্ডও থাকবে যার মাধ্যমে সারা বছর জাকাত দিতে পারবে এবং সঠিক হিসাব রাখাও সম্ভব হবে। এছাড়াও আরও অনেক বহুমুখী ব্যবহার আছে এই জাকাত কার্ডের।

নগদহীন অর্থনীতিতে যখন পৃথিবী চলবে তখন এই কার্ডের ব্যবহার বেড়ে যাবে অনেক গুণ।

জাকাত কার্ডের উদ্ভাবক আন্দালিভ রহমান পার্থ বলেন, এটা আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে জাকাতব্যবস্থার সমন্বয়ের ক্ষুদ্র প্রয়াসমাত্র। ইসলামের জন্য আমার ছোট একটু কাজ আল্লাহ কবুল করুক। আমি আল্লাহর কাছে অনেক কৃতজ্ঞ যে আল্লাহ আমাকে এই কাজ করার সুযোগ দিয়েছেন।

আমার এই উদ্ভাবনের ওপর ভিত্তি করে মেধাবী ছেলেমেয়েরা ভবিষ্যতে ইসলামের সেবায় আরও অনেক কিছু আবিষ্কার করবে বলে আমার বিশ্বাস।

কমেন্টস