দিনাজপুরে ভাদুরিয়া কলেজ কমিটির কার্যক্রম স্থগিতে আদালতের নির্দেশ

প্রকাশঃ মে ১৭, ২০১৮

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ 

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার ভাদুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজের এডহক কমিটির সকল কার্যক্রম আগামী ২৮ জুন পর্যন্ত স্থগিত করেছেন আদালত।

মামলা সূত্রে বলে হয়, বিগত ২০১৭ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর ভাদুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মৃত্যু বরণ করেন। সরকারি বিধি মোতাবেক সহকারী প্রধান শিক্ষক অর্থাৎ মামলার বাদি মো: রফিকুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রদানের জন্য ২২-১০-১৭ তারিখে জেলা শিক্ষা অফিসার পত্র প্রদান করেন। পত্র প্রাপ্তির পর ৫নং ক্রমিকের শিক্ষক ৩নং বিবাদী মো: শহিদুল ইসলাম অসৎ উদ্দেশ্যে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করছেন।

এছাড়া ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোপনে একটি মনগড়া এডহক কমিটি করে শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন নিয়েছেন। এই পকেট কমিটি আবার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনের তপশীল ঘোষনা করেছে। এর প্রতিবাদে সহকারী প্রধান শিক্ষক মো: রফিকুল ইসলাম দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ সহকারী জজ আদালতে নিষেধাজ্ঞার প্রার্থনা করে ৫৮/১৮অন্য নং মামলা করেন।

মামলার বিচারক সুবর্ণা সেঁজুতি ১৩ মে আদেশে বলেছেন, আগামী ২৮জুন অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা বিষয়ক আদেশ এবং আদেশ প্রদানের পূর্ব পর্যন্ত নালিশী এডহক কমিটির মাধ্যমে নালিশী স্কুলের সকল কার্যক্রমে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ প্রদান করা হলো।

এদিকে সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ঐ স্কুল এন্ড কলেজে  আদালতের আদেশের ফলে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম মনগড়া নির্বাচন করতে না পেরে অতিশয় বিমর্ষ হয়ে পড়েছেন। কারণ তার মনগড়া এডহক কমিটিকে নিয়ে তিনি স্কুল এন্ড কলেজের বিপুল অংকের অর্থ আত্মসাৎ, সম্পদ তছরুপ, শিক্ষকদের সাথে অসদাচারণের কারণে তিনি ইতিমধ্যে কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন। এখন নতুন ভাবে মনগড়া কমিটি না করলে তার সব অপকর্মের ফিরিস্তি জনসম্মুখে ভেসে উঠবে।

স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র-ছাত্রী ও এলাকাবাসী দুর্ণীতিবাজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের শাস্তি দাবি করেছেন। এ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনা ও ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের বিচার দাবিতে ভুক্তভুগীরা অচিরে কর্মসূচিতে নামবেন বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম জানান, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয়।

কমেন্টস