প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের দুই সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশঃ এপ্রিল ১৭, ২০১৮

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: 

চট্টগ্রাম নগরী থেকে ভুয়া প্রশ্নপত্র তৈরি ও পরীক্ষায় পাশ করিয়ে দেয়ার  ফলাফল  নগরর চকবাজার থানার দামপাড়া থেকে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্ন ও ফল পরিবর্তনের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭।

১৬ এপ্রিল সোমবার দিনগত রাতে নগরীর নগরীর চকবাজার থানাধীন দামাপাড়া এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন জেলার বাশঁখালী উপজেলার বাণীগ্রাম বৈলগাঁও দক্ষিন গ্রামের মো. আহমদ ছফার ছেলে মো. আফজাল (২১) এবং নেত্রকোনার খালিয়াজুরী থানার কৃষ্ণপুর আবিদ মাস্টারের বাড়ির আব্দুল হামিদ মিয়ার ছেলে আবদুল্লাহ ফাহিমকে (১৯)।

র‌্যাব-৭ এর লে. কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান, চকবাজার থানার  মেহেদিবাগের দামপাড়া ১ নম্বর গলির নসুয়া ভবনে মোক্তার হোসেনের ভবনের নিচতলায় প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের দুইজন সদস্য চলতি এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সরবরাহ করছে।

গোপন এ তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার রাত সাড়ে নয়টায় স্কোয়াড্রন লিডার শাফায়াত জামিল ফাহিমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযান চালিয়ে মো. আফজাল এবং মো. আব্দুল্লাহ ফাহিমকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কাজে ব্যবহৃত ৬টি মোবাইল সেট এবং ১২টি সিম কার্ডসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে তারা র‌্যাবকে জানায়, ফেসবুক ও হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে তাদের প্রথম প্রশ্নফাঁস চক্রের সঙ্গে যোগাযোগ হয় এবং পরবর্তীতে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে অন্যান্য গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত হন। এ সব গ্রুপের অ্যাডমিনদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলার মাধ্যমে তাদের কাছ থেকে প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নিয়ে ইন্টারনেটের বিভিন্ন অ্যাপসের মাধ্যমে ভুয়া প্রশ্নপত্র পাঠিয়ে দেওয়ার কাজে জড়িয়ে পড়েন। চক্রটি বিগত এসএসসি পরীক্ষাসহ বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত ছিল এবং তারা শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল পরিবর্তন করে দেওয়ার প্রলোভনও দেখিয়ে আসছিল। তাদের দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের ভিত্তিতে এ চক্রের সঙ্গে জড়িত অন্য সদস্যদের গ্রেফতারের চলছে।

ধৃতদের বিরুদ্ধে পাবলিক পরীক্ষা (অপরাধ) আইন ১৯৮০ এর ৪(খ) ও তথসহ দন্ডবিধির ৪২০/৪০৬ ধারা অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে চকবাজার থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

কমেন্টস