সালিশ বৈঠকের মধ্যেই মাতব্বরকে পিটিয়ে হত্যা

প্রকাশঃ মার্চ ১২, ২০১৮

জামালপুর প্রতিনিধিঃ

জামালপুর সদর উপজেলার একটি সালিস বৈঠকে মাতব্বরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ দুজনকে গ্রেফতার করেছে।

আজ সোমবার সকাল দশটার দিকে জামালপুর সদর উপজেলার দিগপাইত ইউনিয়নের পূর্বপাড় দিঘুলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি পূর্বপাড় দিঘুলী গ্রামের আজাফর আলীর ছেলে মোঃ বাবর আলী (৩৮)।

জানা যায়, তিনি ওই গ্রামের মাতব্বর হিসেবে পরিচিত ছিল। তিনি দিগপাইত ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। পুলিশ এ ঘটনায় একই গ্রামের কাজেম উদ্দিন (৫৫) ও তাঁর ছেলে জয়নাল আবেদীনকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে কাজেম উদ্দিন ও মফিজ উদ্দিনের মধ্যে একটি চলাচলের রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধ সমাধানের জন্য কাজেম উদ্দিনের বাড়িতে আজ সোমবার সকাল দশটার দিকে একটি সালিস বৈঠক বসে। সালিস বৈঠকে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির এক পর্যায়ে মারপিট শুরু হয়।

এ সময় কাজেম উদ্দিনের লোকজন সালিসে আসা মাতব্বর মোঃ বাবর আলীকে কাঁঠের লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এ সময় স্থানীয় লোকজন গুরুতর অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল এলাকা থেকে কাজেম উদ্দিন (৫৫) ও তাঁর ছেলে জয়নাল আবেদীনকে (৩৫) গ্রেফতার করে।

জামালপুর সদর উপজেলার নারায়নপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ জয়নাল আবেদীন খোলা কাগজকে বলেন,‘বাড়ির চলাচলের রাস্তা নিয়ে সালিসের মধ্যে একপক্ষের লোকজনের মারপিটে ওই মাতাব্বরের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। নিহতের স্ত্রী ছামেনা বেগম বাদী হয়ে জামালপুর সদর থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

কমেন্টস