চরভদ্রাসনে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও নেই শহীদ মিনার

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় ৫৩ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকলেও কোমলমতি ও ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের বছরের বিশেষ বিশেষ দিবস গুলো পালনে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও শহিদ মিনার নেই।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, চরভদ্রাসন উপজেলা সদর ইউনিয়নে ২০টি, গাজিরটেক ইউনিয়নে ১৬টি, চরহরিরামপুর ইউনিয়নে ১৩টি ও চরঝাউকান্দার চারটি ইউনিয়নে মোট ৫৩ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। আর উক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে প্রতি বছরের অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বিশেষ বিশেষ দিবস গুলো উদ্যাপনে নেই কোন শহিদ মিনার।

এদিকে, উপজেলায় ৫৩ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটিতেও শহিদ মিনার না থাকার বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার নবাগত প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল হক এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি উপজেলায় সবেমাত্র যোগদান করেছি। তবে আমি যতটুকু জানি তাতে এখনও পর্যন্ত এ উপজেলার কোন ইউনিয়নের স্কুলেই কোন শহিদ মিনার নেই।

তবে বর্তমান সরকার প্রতিটি উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে শহিদ মিনার করার সিন্ধান্ত নিয়েছে এবং তালিকা সংগ্রহ করছে। তবে এ উপজেলার বিদ্যালয় গুলোর শহিদ মিনারের জন্য শুনেছি আমি আসার আগে একবার তালিকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তালিকাটি কোথায় রাখা হয়েছে অমি জানিনা। তবে আমি আসার পরে কোন তালিকা চাওয়া হয়নি বলে তিনি জানান।

অপরদিকে, মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার সদরের বেশ কয়েকটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘুরে ও মুঠোফোনে উপজেলা সদরের পূর্ব বিএস ডাঙ্গী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আফরোজা আক্তার ও উপজেলার মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লাকি আক্তার এর কাছে উক্ত বিদ্যালয় গুলোতে শহিদ মিনার না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমাদের স্কুল গুলোতে শহিদ মিনার না থাকায় আমরা আমাদের স্কুলে শিক্ষার্থীদের বছরের বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানসহ অন্যান্য বিশেষ দিবস গুলো পালন করতে সমস্যায় পড়ি। আবার অনেক সময় আমাদের ছোট ছোট শিক্ষার্থীদেরকে অনুষ্ঠানগুলো পালন করতে উপজেলায় আসতে হয়। আবার কিছু কিছু সময় আমাদেরকে শহিদ মিনার ছাড়াই নিজ স্কুলেই দিবস গুলো পালন করতে বলা হয়।

এদিকে, একই দিন বিকালে চরভদ্রাসন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্র হতে জানা যায়, চরভদ্রাসন উপজেলার সদর ইউনিয়নে ১টি সরকারি ৪টি বেসরকারি, গাজিরটেক ইউনিয়নে ৫টি বেসরকারি ও চরহরিামপুর ইউনিয়নে ২টি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ উপজেলায় মোট ১২টি মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। আর উপজেলার এ ১২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বেশিরভাগ বিদ্যালয় গুলোতে শহিদ মিনার থাকলেও এখনও পর্যন্ত কয়েকটি মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় গুলোতে এখনও শহিদ মিনার শূন্য রয়েছে বলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্র থেকে জানা যায়।

অপরদিকে, মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার চরহরিরামপুর ইউনিয়নের আমিনখাঁর হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক আবুল কাসেম ও সদর ইউনিয়নের লোহারটেক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফর হোসেন এর কাছে শহিদ মিনার না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমাদের স্কুল গুলোতে এখনও পর্যন্ত কোন শহিদ মিনার নেই। আমরা বছরের ক্রীড়া অনুষ্ঠানসহ বাকি অন্যান্য অনুষ্ঠান গুলো স্কুলেই অস্থায়ী ভাবে শহিদ মিনার তৈরি করে ঐ শহিদ মিনার দিয়েই অনুষ্ঠান গুলো সম্পন্ন করি থাকি।

তারা এসময় আরো বলেন, শহিদ মিনারের ব্যাপারে আমাদের কাছ থেকে কখনও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস বা সরকারি ভাবে থেকে কোন তালিকা চাওয়া হয়নি। তবে আজকে আমাদের উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফোন করে আমাকে আমার স্কুলে শহিদ মিনার আছে কিনা জানতে চেয়েছিল বলে উক্ত দুই শিক্ষক জানান।

কমেন্টস