রাখাইন থেকে এখনও আসছে রোহিঙ্গারা

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে এখনও আসছে রোহিঙ্গারা। গত এক সপ্তাহে ৫ শতাধিক রোহিঙ্গা নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। অনুপ্রবেশকারী এসব রোহিঙ্গাদের উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। পালিয়ে আসা এসব রোহিঙ্গার দাবি, রাখাইনে নতুন করে নির্যাতন ও বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেওয়া শুরু করেছে সে দেশের সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থী মগরা।

বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমারের চুক্তি সইয়ের পর রোহিঙ্গাদের যখন স্বদেশে প্রত্যাবাসনের প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে ঠিক সে মুহূর্তে রাখাইনে নতুন করে শুরু হয়েছে রোহিঙ্গা নিধন। যার কারণে চলমান রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে দেরি হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

দুই দিন আগে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা বলছেন, মিয়ানমারের রাখাইনের রোহিঙ্গা পল্লিতে এখনও নানা নির্যাতন চালানো হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের মধ্যে ব্যাপক খাদ্য সংকট সৃষ্টি হয়েছে। আতঙ্কিত রোহিঙ্গারা পালিয়ে সীমান্তের নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করছে।

মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ তাদের দেশের নাগরিকদের বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা। কিন্তু বাস্তবতা তার উল্টো। তবে চুক্তি অনুযায়ী, বাংলাদেশের পক্ষে যথাযথ প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। প্রত্যাবাসনের জন্য রোহিঙ্গাদের পরিবারভিত্তিক তালিকা করা হচ্ছে।

কক্সবাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন অফিস কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, ‘এখনও প্রতিদিন রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ অব্যাহত রয়েছে। আগের মতো ব্যাপক হারে না আসলেও প্রতিদিন ২-৩ শত রোহিঙ্গা আসছে। অথচ চুক্তিতে বলা ছিল যে, মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ তাদের দেশের নাগরিকদের বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে। কিন্তু বাস্তবে তার প্রতিফলন দেখতে পাইনি।

কমেন্টস