টার্কি পাখির খামার গড়ে স্বাবলম্বী আরজুমান

প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৮

সৈয়দ রোকনুজ্জামান, নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

দিনাজপুর নবাবগঞ্জে টার্কি জাতীয় পাখির খামার গড়ে তুলে আরজুমান নামে এক নারী এখন সাবলম্বী হয়ে উঠেছে। আরজুমানের এ খামারের উৎপাদিত টার্কি পাখি এখন দেশের বিভিন্ন স্থানে যাচ্ছে।

প্রতিদিন শত শত টার্কি পাখির ডিম ও বাচ্চা দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করা হচ্ছে। আর এ পাখি বিক্রির লভাংশে সাবলম্বী হয়েছেন আরজুমান নামে ওই নারী খামারী।

স্বল্প খরচে, স্বল্প সময়ে অধিক লাভজনক এই টার্কি পাখির চাষ। এর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বেশি ও মাংশও অত্যান্ত সুস্বাদু। লতাপাতা, কচুরিপানা, শাকসবজী এ পাখির প্রধান খাদ্য। রোগ বালাই নেই বললেই চলে, ফলে এ পাখি পালনের ব্যবসা লাভজনক বলে জানান খামারী আরজুমান আরা। আরজুমানের এ সাফল্য দেখে এলাকার অনেকেই টার্কি পাখি চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছে।

দিনাজপুর নবাবগঞ্জের আরজুমান আরা স্বপরিবারে থাকতেন মালোশিয়ায়। শিক্ষা জীবনের পর চাকরি না করে ছুটে দেশে এসে টার্কি পাখির খামার গড়েন তিনি।

২০১৬ সালে নওগা জেলা হতে প্রথমে আড়াই লক্ষ টাকায় ১শ’ টার্কি পাখি ক্রয় করে এনে পালন শুরু করেন। সে থেকে আর পেছনে তাকাতে হয়নি তাকে, এখন তার খামারে ১ হাজার টার্কি পাখি থেকে ডিম সংগ্রহ চলছে। ডিম থেকে বাচ্চাও ফোটানো হয় তার খামারে। প্রায় ২ একর জমির উপর গড়ে তোলা এ খামারের নাম দিয়েছেন ‘ইকো এ্যাগ্রো’।

এ ফার্মে প্রতিদিন ঢাকা, বগুড়া, জয়পুরহাট, রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকার আসে বাচ্চা নিতে।

কমেন্টস