সজিবের লাশ উদ্ধার: ত্রিশালে মহাসড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

নাজমুস সাকিব, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ

ময়মনসিংহের ত্রিশালে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে স্থানীয় শুকনি বিলে ঝাঁপ দেয়ায়ার ঘটনায় দুইদিন খোঁজাখুঁজির পর আজ রবিবার দুপুরে কচুরিপনার নিচ থেকে সজিবের মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয় এলাকাবাসি।

এ ঘটনায় আজ রবিবার প্রশাসনের কোন উদ্ধার তৎপরতা না থাকায় উত্তেজিত জনতা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও করার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। পরে পৌর মেয়রের হস্তক্ষেপে ফিরে যান বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

জানা যায়, জেলার ভালুকা জমিরদিয়া মাষ্টার বাড়ি এনআরজি কম্পোজিট ইয়ার্ন ডাইংয়ে কর্মরত সজিব ছুটিতে বাড়ি আসে। শুক্রবার বিকেলে বাড়ির পাশে শুকনি বিলের পাড়ে বসে ক’জন বন্ধু মিলে তাস খেলছিল। খবর পেয়ে সন্ধ্যার ঘন্টাখানেক আগে ঘটনাস্থলে গিয়ে ধাওয়া করে ত্রিশাল থানা পুলিশ। ধাওয়া খেয়ে শুকনি বিলে ঝাঁপ দেয় সজিব। এরপর আর পাড়ে উঠে আসতে পারেনি সজিব।

প্রায় আধঘন্টা অপেক্ষার পর থানায় ফিরে আসে পুলিশ। গত দু’দিন স্থানীয় এলাকাবাসি কচুরিপনা সরিয়ে সরিয়ে ওই বিলে সজিবের খোঁজ করতে থাকলে আজ রবিবার দুপুর দেড়টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়। সজিব পৌরশহরের চরপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে।

এ ঘটনায় ডুবুরিদল না ডাকা কিংবা প্রশাসনের কোন উদ্ধার তৎপরতা না থাকায় উত্তেজিত জনতা লাঠিসোটাসহ সজিবের মরদেহ কাধে নিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও করার চেষ্টা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে লাশ থানায় নিয়ে যায়। এ সময় আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে ফেলে। পরে পৌর মেয়রের হস্তক্ষেপের ফিরে যান তারা।

প্রত্যক্ষদর্শী নাজমুল জানান, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শুকনি বিলে ঝাপ দেয় সজিব। দুইজন বিল থেকে উঠে এলেও পাড়ে উঠে আসেনি সজিব।

নিহত সজিবের চাঁচা মাসুদুল করিম পল্টন বলেন, পুলিশের ধাওয়ায় ভাতিজা বিলে ঝাপ দিয়ে নিখোঁজ হলো কিন্তু গত দু’দিনেও কর্তব্যে অবহেলা করে প্রশাসনের কোন উদ্ধার তৎপরতা ছিল না।

থানার এএসপি আল আমিন জানান, পুলিশের ধাওয়ায় সজিব নিখোঁজের অভিযোগে তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেছি। পরে শুকনি বিল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় এলাকাবাসি। এখন তার মরদেহের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

কমেন্টস