‘টাঙ্গুয়ার হাওরে পর্যটন উন্নয়নে জলবায়ু সহিষ্ণু প্রকল্প নেয়া হয়েছে’

প্রকাশঃ ডিসেম্বর ২১, ২০১৭

সিলেট প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়ার হাওর এখন বিশ্বব্যাপী পরিচিত। প্রতিদিন পর্যটকেরা আসেন এখানে। তাই জেলার তাহিরপুরের টাঙ্গুয়ার হাওরসহ সকল পর্যটন সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হবে। এ জন্য সরকারের বিশেষ উদ্যোগ আছে।

টাঙ্গুয়ার হাওরে ‘দায়িত্বশীল পর্যটন উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়ন’ শীর্ষক এক কর্মশালায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বুধবার বক্তারা এই মতামত তুলে ধরেন।

জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও আন্তর্জাতিক পরিবেশবাদী সংগঠন ‘ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজারভেশন অব ন্যাচার (আইইউসিএন)’ যৌথভাবে এই কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন , বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের পরিচালক (পরিকল্পনা) মো. শহীদুল আলম।

অন্যদের মধ্যে মূল বক্তব্য রাখেন, আইইউসিএনের প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো. আবদুল মোতালেব, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. শফিউল আলম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত জাহান, আইইউসিএনের সহকারি প্রকল্প কর্মকর্তা সেলিনা সুলতানা, জলবায়ু পরিবর্তন সহায়তা তহবিলের সহকারি পরিচালক (উন্নয়ন) সাকিলা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের সহকারি ব্যবস্থাপক মুজাহিদ আলম, জেলা মহিলা পরিষদের সাবেক সভাপতি শীলা রায়, টাঙ্গুয়ার হাওরের ট্যুরিস্ট গাইড আহমদ কবির প্রমুখ।

কর্মশালায় জানানো হয়, জেলার তাহিরপুর ও ধর্মপাশা উপজেলার বিস্তৃত হাওর জলাভুমি নিয়ে গঠিত রামসার প্রকল্পভুক্ত টাঙ্গুয়ার হাওরের পর্যটনের উন্নয়নে বাংলাদেশে জলবায়ু সহিষ্ণু পর্যটন উন্নয়নে দায়িত্বশীল পর্যটন ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন নামে একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। তাহিরপুরের টাঙ্গুয়ার হাওর এবং এর পার্শ্ববর্তী টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকার স্বাধীনতা উপত্যকা, শহীদ সিরাজ বীর উরম লেক , বারেক টিলা, সীমান্তনদী জাদুকাঁটার সৌন্দর্যকে কাজে লাগিয়ে এই পর্যটন এলাকা গড়ে তোলা হবে।

কমেন্টস