৩ টাকার ডিম নিয়ে রাজধানীতে ‘রণক্ষেত্র’

প্রকাশঃ অক্টোবর ১৩, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর খামারবাড়িতে প্রতি পিস ৩ টাকা মূল্যে ২০ হাজার ডিম বিক্রির ঘোষণা দেয়  প্রাণিসম্পদ অধিদফতর ও বাংলাদেশ পোলট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ কাউন্সিলের (বিপিআইসিসি)। তারই ধারাবাহিকতায় আজ বিশ্ব ডিম দিবসে ৩ টাকা মূল্যে ডিম কেনার জন্য ভোর থেকেই আসতে থাকে রাজধানীবাসী। কিন্তু ডিমের চাইতে লাইনে দাঁড়ানো মানুষের সংখ্যা বেশি হওয়ায় খালি হাতে ফিরতে হয় অধিকাংশ ক্রেতাদের।

এদিকে, সকাল ১০টায় ডিম বিক্রি শুরু করার কথা থাকলেও অতিরিক্ত ক্রেতার চাপে সকাল সাড়ে নয়টার দিকেই বিক্রি শুরু করা হয়। কিন্তু বিশৃংখলার কারণে মাত্র ২০ মিনিটের মাথায় বিক্রি বন্ধ করে দিতে হয়। ডিম কিনতে না পেরে ক্ষুব্ধ লোকজন বিক্ষোভ শুরু করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ একপর্যায়ে ক্ষুব্ধ ক্রেতাদের ওপর লাঠিচার্জ শুরু করে। পরিস্থিতি তখন রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এনিয়ে অনেকেই ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

কেআইবি চত্বর ঘুরে দেখা যায়, হাজার হাজার ডিম প্রত্যাশী মানুষ ব্যাগ হাতে দাঁড়িয়ে রয়েছে। লাইনে দাঁড়ানো মানুষকে হইহুল্লোড় করতে দেখা যায়। কেআইবি’র গেটে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করতে দেখা গেছে। ইসমাইল নামে এক পুলিশ সদস্য বলেন, ‘আমরা শুনলাম ডিম আছে ২০ হাজার। কিন্তু মানুষ তো ত্রিশ হাজার পার হয়েছে। এখনও বিতরণও শুরু হয়নি। নির্ধারিত সময় বিক্রি শুরু হবে কিনা সন্দেহ।’

তেজকুনীপাড়া থেকে আসা সাব্বির বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে এই প্রতারণার কোনো মানে হয়? দিতে পারবে না বললেই হতো। আমি যাদের দেখেছি, তাদের অধিকাংশ দোকানদার। আমাদের মতো সাধারণ মানুষ ডিম পেয়েছে বলে জানি না।’

মগবাজার থেকে আসা মধ্যবয়সী আবদুর রশিদ জানান, ‘সকাল ১০ টাকা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে, এমনটা জানতাম। কিন্তু ১০টায় শেষ। এটার কোনো মানে হয়?’

অপরদিকে, আয়োজকরা বলছেন, আমাদের প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি ক্রেতা সমাগম হয়েছিল। যে কারণে সমস্যাটি তৈরি হয়েছে। আমরা আসলে ছোট পরিসরে একটি উদ্যোগ নিয়েছিলাম। এটা থেকে আমরা শিক্ষা নিলাম। পরবর্তীতে আশা করি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পারব।

কমেন্টস