পাওনা টাকা দেয়ার সূত্রে ডেকে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ: গ্রেপ্তার ৫

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

মনোহরি মালামাল বিক্রয়ের সূত্র ধরে পাওনা টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে সাতক্ষীরায় এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণ। অভিযুক্ত পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

“গত রোববার ১৭ সেপ্টেম্বর রাতে সদর উপজেলার ছয়ঘরিয়ার সিরাজের ইটভাটায় নিয়ে ধর্ষণ করা হয়” এই অভিযোগে ১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন ওই নারী।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, ওই নারী মনোহরির মালামাল বিক্রি করেন। মালামাল বিক্রয়ের সূত্র ধরে তরিকুল ইসলামের কাছে তার এক হাজার টাকা পাওনা হয়। কিন্তু তরিকুল পাওনা টাকা দিতে টাল বাহানা করেন। এক পর্যায়ে রোববার টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইলে ফোন করে ওই নারীকে কদমতলা ব্রিজের কাছে আসতে বলেন তরিকুল। সেখানে গেলে তাকে ভ্যানে করে ছয়ঘরিয়ার সিরাজের ইটভাটার কাছে যেতে বলেন। “তার কথা মত সেখানে গেলে ওই নারীকে রাস্তা থেকে ধরে ভাটার ইটকাটার রুমে নিয়ে তরিকুলসহ ছয়জন ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে ওই নারীর চিৎকারে টহল পুলিশ তাকে উদ্ধার এবং কবিরুলকে আটক করে।”

আজ সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্রমান্বয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি মারুফ আহমেদ জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, আসামিদের মধ্যে ছিলেন সদর উপজেলার দেবনগর গ্রামের জামের আলির ছেলে তরিকুল ইসলাম (২৫), একই গ্রামের করিম বক্সের ছেলে ইদ্রিস আলি (২০),(২৫), দেবনগর গ্রামের রঞ্জনের ছেলে সঞ্জয়, বাঁশঘাটা গ্রামের কোরবান আলির ছেলে আলামিন (২২) ও বেতলা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে কবিরুল ইসলাম (২৭)।

ঘটনাস্থল থেকে আটক কবিরুলের দেওয়া তথ্যে পুলিশ সোমবার সারাদিন অভিযান চালিয়ে আরও চার জনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারদের মধ্যে ইদ্রিস আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন বলে ওসি জানান।

কমেন্টস