রোহিঙ্গাদের জন্য ‘চাল-নুন’ পাঠিয়েছে ভারত

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

মিয়ানমারের রাখাইনে দেশটির সেনাবাহিনী ও তাদের লোকজনের বর্বরতা ও নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ৫৩ টন ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়েছে ভারত। ভারতীয় ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- চাল, ডাল, তেল, চিনি, নুন, বিস্কুট, গুঁড়ো দুধ, নুডলস ও মশারি।

বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে ভারতীয় ত্রাণবাহী বিমান সি-১৭।

শাহ আমানত বিমানবন্দরে উপস্থিত থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলার কাছ থেকে ত্রাণসামগ্রী গ্রহণ করেন।

এদিকে সন্ধ্যায় আরও দুটি ইন্দোনেশিয়ান কার্গো বিমান ওই দেশের সরকারের পাঠানো ত্রাণ নিয়ে বাংলাদেশে আসবে।

অপরদিকে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণসামগ্রী পাঠানোর এ কার্যক্রমকে ‘অপারেশন ইনসানিয়াত’ নাম দিয়েছে ভারত। এই কার্যক্রমের আওতায় ভারত রোহিঙ্গাদের জন্য মোট সাত হাজার টন ত্রাণসামগ্রী পাঠাবে। অন্য ত্রাণসামগ্রী পর্যায়ক্রমে পাঠানো হবে।

এ ত্রাণসামগ্রী শিগগির কক্সবাজার, টেকনাফ, উখিয়া ও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।

এর আগে সকালে মরক্কো সরকারের পক্ষ থেকে পাঠানো ত্রাণবাহী একটি উড়োজাহাজ বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। ওই উড়োজাহাজে ১৪ টন ত্রাণ রয়েছে। ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে ৭০ পিস তাঁবু, ১০০০ পিস কম্বল, ৫০০ বক্স ওষুধ, গুঁড়ো দুধ দুই টন, মেট্রেস এক টন ও চার টন চাল। এছাড়া গত ৯ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের জন্য ১২ টন ত্রাণ পাঠিয়েছিল। তাদের পাঠানো ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে ছিল পানি বিশুদ্ধকরণ বড়ি, মিল্ক পাউডার, খেজুর, চাল, শ্যাম্পু, তোয়ালে, কাপড়-চোপড়।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার মিয়ানমার সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এসময় রোহিঙ্গা নির্যাতন ও তার ফলে তাদের দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা নিয়ে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করবেন, মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে চাপ দেবেন- এমনটাই আশা করেছিলেন সবাই। কিন্তু তিনি তা না করে মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে সুর মিলিয়েছিলেন। এদিকে মিয়ানমার সরকারের পক্ষ নেওয়া ভারত বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য আজ ৫৩ টন ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়েছে। এমনকি আরও ৬৯৪৭ টন ত্রাণসামগ্রী পাঠানোর ঘোষণাও দিয়েছে ভারত।

Advertisement

কমেন্টস