৪ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে সন্তান প্রসব করে আবারও রাস্তায় ফিরে যেতে হয়েছে রোহিঙ্গা নারী খালেদাকে

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

এ এস এম সুজা ও মেরিনা মিতু-

প্রসব বেদনায় ছটফট করতে করতে যখন একেবারেই নাচাল তখন কোনোরকম তাদের ঠায় মিলছে স্থানীয়দের ঘরে। মাত্র চার পাঁচ ঘন্টার জন্য আশ্রয় পাচ্ছে রোহিঙ্গা প্রসূতি এই মায়েরা।

21729665_1450377661748856_477551242_o

21729682_1450379488415340_285615255_o

আজ বুধবার দুপুর ১ টার দিকে জন্ম নেয়া এক রোহিঙ্গা শিশুর মা খালেদার সাথে কথা বলে জানা যায়, সন্তান জন্ম দেয়ার জন্য মাত্র ৪ ঘণ্টা সময় পেয়েছেন তিনি। এমনকি সন্তান প্রসবের পর তাকে ফিরে যেতে হয়েছে খোলা আকাশের নিচে রাস্তায়।

21729683_1450378695082086_703323610_o

21729791_1450378105082145_1258430187_o (1)

এদিকে প্রসবের সময় সন্তানের বাবাকেও পাশে পাননি খালেদা, পরবর্তীতে যখন আসেন, ইতিমধ্যে ঠায়ের সময়সীমা পার হয়ে যায়, তখন  বউ আর বাচ্চা নিয়ে সেই পথেই ফিরে আসতে হয়।

21729833_1450381585081797_890218359_o

21733637_1450382011748421_1152708275_o

বাচ্চার নাম এখনও রাখা হয়নি বলে জানান খালেদা। কান্নাজড়িত কণ্ঠে এই রোহিঙ্গা মা জানান, এই শিশুকে গর্ভে নিয়ে তিনি মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসেন। মনে মনে মেনেও নিয়েছিলেন যে হয়তো শেষ পর্যন্ত বাচ্চার মুখ দেখতে পাবেন না। ‘বাচ্চা নিয়ে এখন কোথায় যাবে?’ সেই চিন্তার ভাঁজ যেনো বাচ্চার মুখ দেখেই মুছে গেছে।

21741874_1450380995081856_1708933392_o

21741890_1450378711748751_1837759890_o

রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে যে চিত্র চোখে পড়ে, তাতে প্রতি দশ ঘরে একজন প্রসূতি মায়ের আর্তনাদ। তাদের জন্য নেই কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থা। মিয়ানমারে থাকাকালীন অসহনীয় নির্যাতন আর প্রাণ হারানোর ভয় নিয়ে পালিয়ে বেরানো মায়েদের গর্ভে থাকা প্রাণগুলোর জন্ম হচ্ছে বাংলাদেশে এসে। যেই শিশু ভুমিষ্ঠ হওয়ার আগেই মৃত্যুর ভয়ে সংকুচিত ছিলো, তারা সূর্যের আলো দেখছে বাংলাদেশের মাটিতে এসে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে জন্ম নিচ্ছে এক একজন রোহিঙ্গা শিশুর।

21754775_1450380785081877_1244127506_o (1)

21742008_1450381448415144_447523741_o

সদ্য জন্ম হওয়া এই শিশু নিয়ে কোথায় গিয়ে ঠায় নিবেন সেই চিন্তায় বাক্যহারা পরিবার।

21754533_1450377141748908_461860589_n

21742185_1450379991748623_1555522661_o

গত ২৫ আগস্টের পর থেকে গত ১৮ দিনে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের জিরো পয়েন্টে শতাধিক রোহিঙ্গা নারী সন্তান প্রসব করেছেন বলে জানিয়েছে রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন সূত্র।

21744402_1450378381748784_377533120_n

21744440_1450381485081807_1957830890_n

এদিকে গত কয়েক দশক ধরে ঠান্ডা মাথায় মিয়ানমারের সামরিক জান্তা সরকার ও সুচি সরকারের সুপরিকল্পিতভাবে নীরব ‘জেনোসাইডের’ অন্তরালে হাজার হাজার রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত হয়েছে, পালিয়ে বাঁচার সময় সাগরে ডুবে মারা গেছে। সুচি সরকার ক্ষমতায় আসার আগেই ভোটাধিকার ও নাগরিকত্ব কেড়ে নিয়ে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের রাষ্ট্রবিহীন জাতিতে পরিণত করা হয়েছে।

21744884_1450381891748433_1054995696_o

21745039_1450378221748800_439255738_o

আজ বুধবার জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র সোসেফ ত্রিপুরা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে আরও ৯ হাজার রোহিঙ্গা।

21745161_1450382708415018_1964622284_o

21745230_1450379305082025_172432832_o

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট ভোররাত থেকে রাখাইনে সীমান্তরক্ষী পুলিশের সঙ্গে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) সদস্যদের সংঘাত শুরু হয়। এতে শতাধিক ব্যক্তি নিহত হন। এর মধ্যে ১২ জন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও বাকিরা আনসার সদস্য ছিল। এ ঘটনার পর মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী বিতাড়ন অভিযান শুরু করে।

Advertisement

কমেন্টস