মেয়াদ শেষের ১৬দিন পরও বাসভবন ছাড়ছেন না শাবি উপাচার্য

প্রকাশঃ আগস্ট ১৩, ২০১৭

শাবি প্রতিনিধি-

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আমিনুল হক ভূইয়ার মেয়াদ শেষ হওয়ার ১৬দিন পরও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে স্বপরিবারে অবৈধ ও অনৈতিকভাবে বসবাস করছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

এছাড়া ১৬ দিন পেরিয়ে গেলেও নতুন উপাচার্য না আসায় প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। উপাচার্যবিহীন শাবিতে শিক্ষকগণ তাদের শিক্ষাছুটি ও বিদশে গমন এবং শিক্ষার্থীরা সার্টিফিকেট পাচ্ছেন না।

শনিবার শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক মো. মহিবুল আলম সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব অভিযোগ করা হয় ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও সদ্য বিদায়ী উপাচার্য ড. আমিনুল হক ভূইয়া স্বপরিবারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলোতে অবস্থান করছেন, যা চরম অন্যায়, অনৈতিক এবং অবৈধ।’

অভিযোগে আরো বলা হয়, ‘বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করে সেখান থেকেও সুযোগ সুবিধা নিচ্ছেন। এ বিষয়ে শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এবং কোষাধ্যক্ষের সাথে যোগাযোগ করলেও তারা কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।’ এ নিয়ে শিক্ষকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে এবং শিক্ষক সমিতি এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করে বলা হয়, ‘গত ২৭ জুলাই উপাচার্য অধ্যাপক আমিনুল হক ভূইয়ার মেয়াদ শেষ হয়। এর পর উপাচার্যবিহীন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম, শিক্ষকদের শিক্ষাছুটি ও বিদেশ গমন এবং ছাত্রছাত্রীদের সার্টিফিকেট প্রদানসহ যাবতীয় কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। উপাচার্যের শেষ কর্মদিবসে শিক্ষকদের ছুটি দেওয়ার সুযোগ থাকলেও এক শিক্ষক ছুটির অনুমোদন চাইলে তাকে ছুটি দেয়নি বরং তার সাথে দুর্ব্যবহার করেন।

এসময় ওই শিক্ষককে উদ্দেশ্য করে তিনি (ভিসি) বলেন, “আমি চাইলে তোমাকে ছুটি দিতে পারি কিন্তু দিব না।” এর ফলে ভুক্তভোগী শিক্ষক শাহজাহান মিয়ার পিএইচডি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।’

এ বিষয়ে রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেন বলেন, ‘উপাচার্য আমাকে শনিবার সন্ধ্যায় জানিয়েছেন উনি ২৫ তারিখের আগে চলে যাবেন। দায়িত্ব ছাড়ার পরেও বাসভবনে অবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, এ ধরনের কোনো নীতিমালা নেই। সরকারি নিয়ম আছে তো, দায়িত্ব ছাড়ার পর এক-দুইমাস থাকা যায়।’ তবে এর আগেরদিন রেজিস্ট্রারই গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, ‘উপাচার্য এরকম অবস্থানের নিয়ম বিশ্বাবিদ্যালয়ের আইনেও নেই। অতীতেও কোন উপাচার্য এরকম অবস্থান করেননি।’

বিষয়টি জানতে সদ্য বিদায়ী উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আমিনুল হক ভূইয়ার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁর মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য, গত ২০১৩ সালের ২৮ জুলাই উপাচার্য হিসেবে শাবিতে যোগদান করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. মো. আমিনুল হক ভূইয়া এবং চলতি বছরের ২৭ জুলাই তাঁর মেয়াদ শেষ হয়।

কমেন্টস