সহপাঠিদের সাহসী ভূমিকায় অপহরণের হাত থেকে রক্ষা পেল স্কুলছাত্রী

প্রকাশঃ আগস্ট ১২, ২০১৭

প্রতিকি

অমর ডি কস্তা, নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরের বড়াইগ্রামের জোয়াড়ি ইউনিয়নের ভিটাকচুরগাড়ী ফকিরবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী রাইশা জাহান রিতু (১৩) কে অপহরণের চেষ্টা চালিয়ে স্কুলের সহপাঠিদের সাহসী ভূমিকায় ব্যর্থ হয়ে পালিয়ে যায় অপহরণকারীরা।

শনিবার বিকেলে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই স্কুলের শতাধিক শিক্ষার্থী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এসে অপহরণের চেষ্টায় যারা জড়িত তাদেরকে গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানায়। রিতু ওই ইউনিয়নের ভিটাকচুর গ্রামের রতন আলী সেখের মেয়ে।

রাইশা জাহান রিতু জানায়, পাশ্ববর্তী গুরুদাসপুর উপজেলার দাদুয়া গ্রামের মৃত সেকু প্রামাণিকের ছেলে রাসেল সেখ (২০) সম্পর্কে বেয়াই হয়। প্রায় ৬ মাস ধরে ওই রাসেল তাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। কিন্তু রিতু প্রস্তাবে কিছুতেই রাজী না হলে শনিবার স্কুল থেকে বাড়িফেরার পথে রাসেল ও সহযোগী ৭/৮ জন তাকে অপহরণের উদ্দেশ্যে ভিটাকচুরগাড়ী এলাকায় সড়কে অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে রিতু দূর থেকে বিষয়টি আঁচ করতে পেরে সহযোগী বান্ধবীকে অন্যসব সহপাঠিদের আসার জন্য কৌশলে পাঠিয়ে দেয়। রাসেল ও সহযোগীরা রিতুর কাছাকাছি আসা মাত্র দল বেধে দৌড়ে আসে সহপাঠিরা। আর তা দেখে দ্রুত দৌড়ে পালিয়ে যায় রাসেল ও সহযোগীরা।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক এম এ জামান জানান, এ ঘটনার পর রিতুসহ শতাধিক স্কুল শিক্ষার্থী বিকেলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউএনও কার্যালয়ে এসে লম্পট রাসেল ও সহযোগীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি করে।

ইউএনও বেগম ইশরাত ফারজানা জানান, আমাকে শিক্ষার্থীরা লিখিত অভিযোগ করেছে। এ ব্যপারে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কমেন্টস