রাজধানী ঢাকার ‘ট্রাম্প ক্যাফে’ নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় আলোড়ন!

প্রকাশঃ জুলাই ১৭, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

ছোটবেলা থেকেই ভালোবাসতেন ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। বিশেষ করে ট্রাম্পের ব্যবসায়িক সফলতা তাকে এনে দেয় সামনে চলার প্রেরণা। স্বপ্ন একদিন ট্রাম্পের মতো বড় ব্যবসায়ী হবেন। তাই ট্রাম্পকে আইডল মেনে রাজধানীর জিগাতলায় ভোজনরসিকদের জন্য চালু করেছেন ট্রাম্প ক্যাফে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত জীবন ও আদর্শ মেনেই ক্যাফেটি চালু করা হয়েছে।

এদিকে ট্রাম্পের বিতর্কিত রাজনীতি বাংলাদেশিদের প্রলুব্ধ করছে বলে ইন্দোনেশিয়ার সংবাদমাধ্যম জাকার্তা পোস্টে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, গত জানুয়ারিতে ক্যাফেটি খুলেন এক ট্রাম্পভক্ত। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের হৃদয়ে তার আদর্শ অনুসরণ করে তৈরি করা ক্যাফেটি মানুষ ভালোভাবে নিয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ‘ইসলাম বিরোধী’ এই ধারণাকে প্রত্যাখ্যান ক্যাফের মালিক শফিউল ইসলাম বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, যদি ট্রাম্প মুসলিম বিরোধী হন, তবে তিনি সৌদি আরব সফর করবেন কেন। আর ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত কখনোই বাংলাদেশের ১৪৪ মিলিয়ন মুসলমানকে প্রভাবিত করেনি। তাছাড়া মেয়েরা ট্রাম্পের বড় ভক্ত এবং শিশুরাও তাকে ভালোবাসে।

তিনি আরও বলেন, ক্রমবর্ধমান খাবারের চেয়ে দর্শকরা ছবি বেশি তুলেন। ক্যাফের সবচেয়ে আকর্ষণীয় খাবার হলো হায়দরাবাদী বিরিয়ানি। এ ছাড়া রয়েছে ক্যাশনাট সালাদ, অলিভিয়া সালাদ, চিকেন রেড পাস্তা, ট্রাম্প সাবওয়ে স্যান্ডউইচ, স্প্রিংরোল, ট্রাম্প স্পেশাল থাই স্যুপ।

এক দশনার্থী জানান, সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো ক্যাফেতে প্রবেশের পর দেখবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছেন।

এদিকে লক্ষ্মীপুরের বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরেই ধানমন্ডিতে আছেন। ২০১৩ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করে প্রথমদিকে বাবার কাপড়ের ব্যবসায় সময় দিতেন। কিন্তু মন বসতো না কাজে। কারণ মনে বড় স্বপ্ন। ট্রাম্পের মতো বড় ব্যবসায়ী হতে হবে। তাই শুরু করেন রেস্টুরেন্ট ব্যবসা। বন্ধু মিথুনকে সঙ্গে নিয়েই জানুয়ারি মাসে রেজিস্ট্রেশন করে এপ্রিলের ১২ তারিখ যাত্রা শুরু হয় ট্রাম্প ক্যাফের। ফেসবুক, বন্ধু, আত্মীয়স্বজন ও মিডিয়ার প্রচারে নগরীর সর্বত্র ছড়িয়ে যায় এই ক্যাফের কথা। শুধু ট্রাম্পের নাম নয় এখানে ট্রাম্পের পছন্দের বেশকিছু খাবারও পরিবেশন করা হয়।

Advertisement

কমেন্টস