স্ত্রীকে অক্ষম দাবি করে গর্ভবতী চাচাতো বোনকে ধর্ষণ অতঃপর…

প্রকাশঃ জুলাই ১৭, ২০১৭

খাইরুল ইসলাম, ঝালকাঠি প্রতিনিধি-

চাচাতো ভাই কর্তৃক ধর্ষণের শিকার ও ৭ মাসের গর্ভবতী কিশোরী আঁখি এখন দিশেহারা। একদিকে আদালতে মামলা দায়েরের পর পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় পরিবারটি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। নলছিটির কুশংগল গ্রামের মোসলেম ফকিরের পুত্র আসামী ধর্ষক সাইদুলের পরিবারের কাছে জিম্মি ধর্ষণের শিকার ও ৭ মাসের গর্ভবতী কিশোরী আঁখির পরিবার। 

জানা গেছে, গত ১৩ জুন লিগ্যাল এইডের আইনজীবি নারগিস আক্তার বানু ভিকটিম আঁখি আক্তার পাখির পক্ষে আইনজীবি নিযুক্ত হয়ে ঝালকাঠি বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্টাইব্যুনালে একটি মামলা (নং৮৯/২০১৭) দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে নলছিটি থানার ওসিকে এজাহার গ্রহনের আদেশ প্রদান করেন। কিন্তু বিধি বাম! টাকা ও প্রভাবশালীদের আশ্রয়ে থাকা ধর্ষক পরিবারের কাছে জিম্মি হয়ে মামলাটি একমাস ৫দিন অতিবাহিত হওয়ার পরেও এজাহার হিসেবে গণ্য হয়নি। তাই ভিকটিম বাদ্য হয়ে গত সপ্তাহের বুধবার পুনরায় আদালতের স্মরণাপন্ন হন এবং আদালত পুনরায় থানাকে এজাহার গ্রহণ করে আদালতে কপি পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, দুই সন্তানের জনক সাইদুল নিজের বউকে অক্ষম দাবি করে চাচাতো বোন কিশোরী আঁখিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ১০ মার্চ ধর্ষণ করে। কিশোরী আঁখি বর্তমানে ৭ মাসের গর্ভবর্তী। পরিবারটি লোক লজ্জার ভয়ে মেয়েকে অন্যত্র সরিয়ে রেখেছেন।

ভিকটিমের পিতা দরিদ্র ইউসুফ আলী ফকির রোববার অভিযোগ করে বলেন, ধর্ষক সাইদুল ও ভাই শহিদুল কিছুদিন পূর্বে রাত ২টার দিকে দা নিয়ে দৌঁড়ে আমার ঘরের সামনে আসে। আমার ঠ্যাং কেটে আদালতে মামলায় বুঝাবে বলে হুমকি দেয়। এ ঘটনায় তিনি নিরাপত্তা চেয়ে আদালতে আরেকটি পিটিশন দাখিল করেন।

Advertisement

কমেন্টস