হেলিকপ্টারের ভাড়ার জন্য পাসপোর্ট আটকে রেখে মুসা ইব্রাহীমকে গৃহবন্দি

প্রকাশঃ জুন ১৯, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

প্রথম এভারেস্ট জয়ী বাংলাদেশি মুসা ইব্রাহিম ও তার সহযাত্রীরা ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়া প্রদেশে মাউন্ট কার্সটেঞ্জ থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও দেশে ফেরা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

সোমবার দুপুর সোয়া দুইটার দিকে এক ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে দেশে ফেরা নিয়ে এ সংশয় প্রকাশ করেছেন মুসা ইব্রাহীম।

ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে তিনি জানান, তাকেসহ তিন পর্বতারোহীকে উদ্ধারকারী তিমিকার হেলিকপ্টার কোম্পানি এশিয়াওয়ান তাদের পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করে গৃহবন্দি করে রেখেছে। বাড়তি অর্থের দাবিতে এশিয়াওয়ান এটি করা হয়েছে।

মুসা ইব্রাহীমের ফেসবুক স্টাট্যাস থেকে জানা যায়, রোববার বৈরী আবহাওয়ার কারণে ফিরে আসারও ভাড়া দিতে বলেছে হেলিকপ্টার কোম্পানি। এছাড়া সোমবার উদ্ধারের আগে আরও একবার উপর থেকে নিচে নেমে আসে। শেষবার মুসাদের উদ্ধার করা হয়। এ কারণে তিন দফা উড়ার ভাড়া ১১ হাজার ডলার দাবি করেছে ওই কোম্পানি। তারা আট হাজার ডলার দিতে রাজি হলেও ওই কোম্পানি তাদের তিন জনের পাসপোর্ট আটকে রেখে গৃহবন্দি করে রেখেছে বলে জানান মুসা ইব্রাহীম।

এর আগে চার দিন পর সোমবার ভোর সোয়ার ছয়টার পর মুসা ইব্রাহীম ও তার সহআরোহীদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়। দ্বিতীয়বারের মতো হেলিকপ্টার পাঠিয়ে ওশেনিয়ার সর্বোচ্চ পর্বত থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

এদিকে পাঁচ দিন পর সোমবার (১৯ জুন) সোয়া ছয়টার দিকে পাপুয়া নিউগিনির মাউন্ট কারস্টেনজের বেস ক্যাম্পে আটকা পড়া মুসা ইব্রাহীমসহ তার সহযাত্রীদের সমতলে নামিয়ে আনা হয়েছে বলে ফেসবুকে তথ্য প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এছাড়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুসা ইব্রাহীমের স্ত্রী উম্মে শরাবন তহুরা।

সোমবার সকালে এ তথ্য জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন মুসা ইব্রাহীমের স্ত্রী উম্মে সরাবন তহুরা। বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি জানান, মুসা এবং তাঁর দলের সদস্যদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। এই স্ট্যাটাসে তিনি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও সব শুভাকাঙ্ক্ষীকে ধন্যবাদ জানান।

এরআগে, রবিবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় মুসার সহযাত্রী ভারতীয় নাগরিক সত্যরূপ সিদ্ধান্তের স্যাটেলাইট ফোন থেকে পাওয়া বার্তা থেকে জানা যায়, তারা পরিত্যক্ত কিছু খাবারের সন্ধান পেয়েছেন। এছাড়া, ওই দিন দুপুরে পাঠানো এক বার্তায় উদ্ধার প্রচেষ্টার জন্য দূতাবাসকে ধন্যবাদও জানান মুসা।

রবিবারই মুসা ইব্রাহীমদের উদ্ধারের জন্য হেলিকপ্টার পাঠালেও আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় তাদের উদ্ধার করা যায় না।

এর আগে, ওশেনিয়া মহাদেশের সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট কার্সটেঞ্জ পিরামিড জয় করার জন্য গত ২৯ মে ইন্দোনেশিয়া থেকে যাত্রা শুরু করেন মুসা। বালিতে তার সঙ্গে যোগ দেন সত্যরূপ ও নন্দিতা। এ অভিযানের আনুষ্ঠানিক নাম ‘বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ এক্সপেডিশন টু মাউন্ট কার্সটেঞ্জ পিরামিড’।

উল্লেখ্য, মুসা ইব্রাহীম প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন। তিনি ২০১০ সালের ২৩ মে বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টা ৫ মিনিটে এভারেস্ট শৃঙ্গ জয় করেন। এছাড়া ২০১১ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর আফ্রিকা মহাদেশের সর্বোচ্চ পর্বত কিলিমাঞ্জারোর চূড়া জয় করেন। এই অভিযানে তার সঙ্গী ছিলেন নিয়াজ মোরশেদ পাটওয়ারী ও এম এ সাত্তার। তবে ১৯ হাজার ৩৪০ ফুট উচ্চতার কিলিমাঞ্জারো পর্বতের চূড়ায় বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়েছেন কেবল মুসা ও নিয়াজ।

Advertisement

কমেন্টস