‘আপনারা হাওরের মানুষ, আমরা গোপালগঞ্জের বাওরের মানুষ’

প্রকাশঃ মে ১৮, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

অকাল বন্যায় নেত্রকোনার হাওরের ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনে বৃহস্পাতিবার সকালে খালিয়াজুড়ি কলেজ মাঠে সুধী সমাবেশে জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে সাধারণ মানুষ ভালো থাকে। কারণ দেশের কামার-কুমার-জেলে-কৃষকের কল্যাণ করা আওয়ামী লীগের নীতি। আমরা সবার কল্যাণের নীতি নিয়ে কাজ করছি বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।’

নেত্রকোনায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন ‘আমি নিজের চোখে আপনাদের দেখতে এসেছি। আপনারা হাওরের মানুষ, আমরা গোপালগঞ্জের বাওরের মানুষ। বন্যায় যেন আপনারা ক্ষতিগ্রস্থ না হন, তার ব্যবস্থা করা হবে।’

তিনি  বলেন, ‘আমরা জনগণের সেবা করতে এসেছি। আমি চাই আপনাদের জীবন মানের উন্নয়ন করতে।’

এরআগে অকাল বন্যায় আকস্মিক ক্ষতিগ্রস্ত হাওর এলাকা স্বচক্ষে দেখতে বৃহস্পতিবার (১৮ মে) সকাল ৯টা ৪৯ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় প্রধান্মন্ত্রী বলেন, ‘আগাম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যতদিন পর্যন্ত কৃষকের ঘরে ফসল না উঠবে ততদিন সরকার খাদ্য সহায়তা দেবে। হাওরের ফসল রক্ষা করতে নদী খনন করা হবে। নদীভাঙা মানুষকে ঘর নির্মাণসহ হাওরাঞ্চলে আবাসিক স্কুল করে দেয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘টুঙ্গিপাড়া যেতে ২৪ ঘণ্টা লাগতো। আমরা ধীরে ধীরে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি করছি। লক্ষ্য হচ্ছে প্রত্যেকটা মানুষ যাতে সুন্দরভাবে বাঁচতে পারে। সেদিক বিবেচনা করে শ্রমিক-কৃষক সবার কথাই ভাবছি। আর এ জন্যই বিশ্ব আজ আমাদের অভিনন্দন জানায়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘৭৫ এর পর যারা ক্ষমতায় ছিল তারা দেশের কোনও উন্নতি করেনি। প্রতি রাতে ক্যু (সামরিক অভ্যুত্থান) হতো।’

তিনি বলেন, ‘বাবরকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বানিয়ে খালেদা জিয়া বান্দরের হাতে লাঠি তুলে দিয়েছিল। এই এলাকার বারোজনকে হত্যা করেছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছেন এ জন্য আমি কৃতজ্ঞ। নৌকায় ভোট দিলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে সাধারণ মানুষ ভালো থাকে।’

এলাকার ছেলে-মেয়েরা যাতে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকাসক্ত না হয় সেদিকে নজর দিতে সবাইকে আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। ডিজিটাল সেন্টার ও কমিউনিটি ক্লিনিক করে দিচ্ছি। এরপরও তারা কেন এসব কাজে জড়াবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখুন। তারা যেন আমার মতো প্রধানমন্ত্রী হতে পারে। সেইভাবেই ছেলেমেয়েদের গড়ে তুলতে হবে।’

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জয়দেব চৌধুরী জানান, ‘প্রধানমন্ত্রীর সার্বিক নিরাপত্তা দিতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা রক্ষায় মাঠে রয়েছেন স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ), র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ, আনসারসহ নিরাপত্তা বাহিনীর সকল সদস্যরা।’

তিনি আর জানান, সকাল ১০টা থেকে ১২টা ১০ মিনিটের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও অন্যান্য দুস্থ্য জনগণের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করবেন। এরপর তিনি সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন ও খালিয়াজুড়ি ডিগ্রি কলেজ মাঠে এক জনসভায় ভাষণ দেবেন। দুপুরেই প্রধানমন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হবেন।

উল্লেখ্য, কয়েক দিনের টানা মৌসুমি বৃষ্টিপাতের ফলে ঢলের পানিতে বাঁধ ভেঙ্গে বন্যায় সুনামগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, সিলেট, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, নেত্রকোনা ও ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।ফলে এলাকার উঠতি বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। হাজার হাজার কৃষকের জীবিকা ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে।

বোরো ধানের ক্ষেত তলিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি মারা গেছে বিপুল পরিমাণ মাছ ও হাঁস। হাওরের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।

Advertisement

কমেন্টস