সাবেক রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকীতে ভৈরবকে আবারো জেলা বাস্তবায়নের দাবি

প্রকাশঃ মার্চ ২০, ২০১৭

রাজীবুর হাসান, ভৈরব প্রতিনিধি-

আজ সোমবার ভৈরবে সাবেক রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব জিল্লুর রহমানের ৪র্থ মৃত্যু বার্ষিকি পালিত হয়েছে।

উপজেলা যুবলীগ ও আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে ভৈরব রাজ কাঁচারী প্রাঙ্গনে আয়োজিত হয় স্মরণ সভা।

ভৈরব শহর যুবলীগ সভাপতি গাজী শাহনেওয়াজ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ সায়দুল্লাহ মিয়া। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন  পৌর মেয়র এ্যাড. ফখরুল আলম আক্কাছ, বিশেষ অতিথি  জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব মির্জা সুলেয়মান, ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু, উপজেলা সাবেক যুগ্ম আহবায়ক হাজী মোঃ সিরাজ উদ্দিন, পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক জাকির হোসেন কাজল, সদস্য সচিব এনামুল হক জাহাঙ্গীর, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মোঃ জিল্লুর রহমানের সাবেক একান্ত সহকারী সাখাওয়াত উল্লাহ, আওয়ামী লীগের নেতা এস এম বাকি বিল্লাহ, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি আতিক আহমেদ সৌরভ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক পরিচালনা করেন, উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য সচিব আব্দুল হেকিম রায়হান ও  উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অরুন আল আজাদ।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো.সায়দুল্লাহ মিয়া তার বক্তব্যে বলেন ,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত রাষ্টপতির কাছে ওয়াদা করেছিলেন ভৈরবকে জেলা হিসাবে ঘোষণা  করবেন। তার ফলসূতিতে একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছিল।  ভৈরববাসীর বিশ্বাস অতি দ্রুত জননেত্রী শেখ হাসিনা ভৈরবে দেশের ৬৫ তম জেলা হিসাবে ঘোষণা করবেন ।

উল্লেখ্য যে, ২০০৯ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি দেশের দেশের ১৯ তম  রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর আলহাজ্ব মো.জিল্লুর রহমান রাষ্ট্রপতি হওয়ার কয়েক মাস পর একই বছরের ১৩ জুলাই ভৈরবের মাটিতে পা রাখেন এবং নাগরিক সংবর্ধনার এক জনসভায় ভৈরবের মানুষের সাথে তিনি সুর মিলিয়ে বলে ছিলেন, ‘জীবনের শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে হলেও ভৈরবকে জেলায় উন্নতি করা হবে।’  প্রবল ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও তার জীবদ্ধশায় দীর্ঘ দুই বছরেও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মোঃ জিল্লুর রহমান ২০১৩ সালের আজকের এই দিনে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে পরলোকগমন করেন ।

Advertisement

কমেন্টস