চিরিরবন্দর উন্নয়ন মেলায় কৃষি বিভাগের প্রথম পুরষ্কার গ্রহণ

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১২, ২০১৭

মোহাম্মাদ মানিক, (চিরিরবন্দর) দিনাজপুর প্রতিনিধি-

বর্তমানে কৃষকের আর ঘাম ঝরাতে হয়না। কৃষিতে আধুনিক উপকরণ ব্যবহারের ফলে ফলন বৃদ্ধির পাশাপাশি সময় ও শ্রম দু’টিই কমেছে কৃষকের। অল্প সময়ে অধিক ফলন উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছেন কৃষকরা।

আর এ কাজে সহায়তা করছে কৃষি বিভাগ, তাই উন্নয়নের মুল চাবিকাঠি কৃষি, এরি পেক্ষিতে দিনাজপুর চিরিরবন্দর উপজেলায় ৩ দিন ব্যাপি উন্নয়ন মেলায় ৩০টি স্টলের মধ্যে প্রথম পুরস্কার গ্রহন করলেন চিরিরবন্দর কৃষি বিভাগ।

গতকাল বুধবার চিরিরবন্দর উপজেলা চত্বরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১-২০৪১ অর্জন ও বাস্তবায়ন সম্পকিত উপজেলা প্রশাসন অয়োজনে ২০১৭ এর ৩ দিন ব্যাপি উন্নয়ন মেলায় বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী বিভাগ এর ৩০ টি স্টলের অংশগ্রহনের মধ্যে ৩ টি বিভাগকে পুরস্কিত করা হয়।

১ম হয়েছে চিরিরবন্দর উপজেলা কৃষি বিভাগ। ২য় হয়েছে চিরিরবন্দর শিক্ষা বিভাগ। ৩য় হয়েছে চিরিরবন্দর ১১ নং তেতুলিয়া ইউনিয়ন। বুধবার মেলা শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহমুদ,চিরিরবন্দর উপজেলা ভাইছ চেয়ারম্যান মো: আফতাপ উদ্দিন মোল্লা ও চিরিরবন্দর উপজেলা সাধারন সম্পাদক মো: আহসানুল হক মুকুল এর উপস্থিতে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহমুদ এর হাত থেকে কৃষি বিভাগের প্রথম পুরস্কার গ্রহন করে চিরিরবন্দর কৃষি অফিসার মো: মাহমুদুল হাসান বলেন, এক সময় আমাদের দেশে কৃষি কাজে প্রাচীন কৃষি উপকরণ ব্যবহার হত। কৃষকরা জমি চাষের জন্য প্রাচীন কৃষি উপকরণ যেমন লাঙ্গল, জোয়াল, মই, পানি সেচের জন্য সেউতি ও দোন এবং নিড়ানোর জন্য আচড়া ইত্যাদি ব্যবহার করতো।

এতে করে কৃষকের অধিক সময় অপচয় হতো ও অধিক শ্রমও দিতে হতো। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে বর্তমান আধুনিক কৃষি উপকরণ ব্যবহারের ফলে কৃষকরা অনেক দুর এগিয়ে গেছেন। তারা খুব স্বল্প সময়ে বেশী ফলন উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছেন।

এতে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি অনেক সময়ও সাশ্রয় হয়েছে। উন্নয়ন মেলায় বিভিন্ন ধরনের কৃষি উৎপাদিত পন্য ও কৃষি যন্ত্রপাতি প্রদর্শন করে মেলার সৌন্দয্য বৃদ্ধি করেছে।

Advertisement

কমেন্টস