চরফ্যাশনে ক্রেতার অপেক্ষায় ফুটপাতের বিক্রেতারা

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১১, ২০১৭

এস আই মুকুল, ভোলা প্রতিনিধি-

শীতের মৌসুম শুরু হয়ে শেষ পর্যায়, কিন্তু চরফ্যাশন এখানো তেমন শীতের প্রভাব পরেনি। তবু চলছে গরম কাপড়ের ব্যবসা। চরফ্যাশন শহরের ফুটপাতে গত বছরের মতো এ বছরও সদরজুড়ে বসছে শীতবস্ত্র।

মৌসুম পরিবর্তনের সাথে সাথে ব্যবসার ধরণও পরিবর্তন হচ্ছে। শোভা পাচ্ছে শীতবস্ত্রের। তবে শীতের প্রভাব না পরায় ক্রেতার অপেক্ষায় ফুটপাতে শীতের পোশাক নিয়ে হতাশা ভোগ করছে বিক্রেতারা।

সরেজমিনে চরফ্যাশন শহরের একাধিক মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, ফুটপাতের দোকানগুলোতে সোয়েটার, কম্বল, লং-জ্যাকেট, শর্ট-জ্যাকেট, ব্লেজারসহ গরম কাপড়ের পসরা সাজিয়ে রেখেছেন। সামান্য বিত্তবানদের পাশাপাশি মধ্যম আয়ের মানুষেও এসব দোকেনে ঢুকছেন। বিভিন্ন ব্র্যান্ড ও বাহারি ডিজাইনের শীত পোশাক আসছে এবার বাজারে। তরুন-তরুনীসহ সব বয়সী লোকের পছন্দের শীতবস্ত্র পাওয়া যাচ্ছে।

ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও গার্মেন্টস মালিক দুলাল  বলেন, আমার গার্মেন্টসে সব ধরনের শীতের পোশাক এনেছি। ইতিমধ্যে শহরের সদর রোডে দু’পাশে অবস্থিত ফুটপাতে হকাররা শ্লোগান দিয়ে বিক্রি শুরু করছেন গরম কাপড়। প্রতিবছর শীতের মৌসুমের ন্যায় নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য শোয়েটার, ব্লেজার, প্যান্ট, টুপি, জ্যাকেট, ট্রাইজার, হাত-পা মোজা, মাফলার, চাদর ও কম্বলসহ নানার ধরনের পোশাক সেখানে চোখে পরবে। ফুটপাতে শোয়েটার ১শ’ থেকে ৩শ, জ্যাকেট ২শ’ থেকে ৪শ’টাকার মধ্যে উন্নত মানের শীতের পোশাক পেয়ে ক্রেতারা খুশি হচ্ছে।

আলম বাতান, রফিক, রুবেল ও নোমান বলেন, গড়ে দৈনিক ৪/৫শ’ টাকা বিক্রি হয়। এতো খরচ পুসিয়ে লোকশানে। ক্রেতারা শীত বস্ত্রের প্রতি তেমন আগ্রহ দেখাচ্ছেনা। শীতও চরফ্যাশন চেপে বসছেনা। তাই দোকানীরা শীতের পোশাক নিয়ে হতাশা ভোগ করছে।

 

Advertisement

কমেন্টস