জেলেদের নিরাপত্তায় সাংবাদিকদের জ্ঞান কাজে লাগাতে হবে

প্রকাশঃ জানুয়ারি ৫, ২০১৭

এস আই মুকুল, ভোলা প্রতিনিধি –

ভোলা জেলার মৎস্যজীবীদের নিরাপত্তা ও আইনগত অধিকার রক্ষায় করণীয় বিষয়ে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৪ জানুয়ারী সকাল ১০:০০ ঘটিকায় বেসরকারি সেচ্ছাসেবী সংস্থা কোস্ট ট্রাস্ট আয়োজনে ভোলা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাঃ সেলিম উদ্দিন।

এসময় জেলে প্রনিধিদের মধ্য থেকে এরশাদ বলেন, এটি জেলেদের পক্ষে একটি ভালো উদ্যোগ। দিন দিন আমরা মাছ ধরছি কিন্তু লাভবান হচ্ছে ক্ষমতাশীল মানুষগুলো। আমরা জলদস্যুদের আক্রান্ত হই, নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে দুর্যোগে পরি। অনেক জেলে নিহত হয় কিন্তু সে পরিমানে ক্ষতিপূরণ পাচ্ছিনা। জেলেদের নামে ভিজিএফ বরাদ্দ হলেও তা পর্যাপ্ত নয় আবার তা জেলেদের নিকট ঠিকভাবে পৌছায় না।

সাংবাদিক নেয়ামত উল্লাহ বলেন, ভোলা জেলায় মৎস্যজীবীগণ কিছুটা দালালদের দৌরাত্বের স্বীকার, মালিকদের কাছে জিম্মি মাছ ধরার পরে যদি নির্ধারিত মালিকের গতিতে মাছ বিক্রি না করেন তাহলে তারা বিভিন্ন সমস্যায় পরে।

তিনি বলেন, ভোলা জেলা প্রশাসনের পক্ষে একা জলদস্যু মোকাবেলা করা সম্ভব নয় এ জন্য ভোলা, নোয়াখালি, চট্রগ্রাম ও পটুয়াখালী আইন শৃংখলা বাহিনীকে একত্রে কাজ করতে হবে।

জেলা প্রশাসক সেলিম উদ্দিন বলেন, ভোলা জেলার কোস্টগার্ডের অফিস সম্প্রসারণ করতে হবে। এ জন্য প্রয়োজনে চর জহির উদ্দিন, কলাতলী, ঢালচরে আলাদা আলাদা অফিস করতে হবে। জেলেদের নিরাপত্তার জন্য সরকারি বেসরকারি ও সাংবাদিকদের জ্ঞানকে কাজে লাগাতে হবে কারণ ভোলার বেশিরভাগ মানুষ জেলে ও মাছ ধরার কাজে নিয়োজিত।

মতবিনিময় সভায় জেলা কোস্ট গার্ড কমান্ডার আবুল বাশার বলেন, আমাদের প্রধান কাজ হলো জেলেদের সহযোগিতা করা ও জলদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করা।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা মৎস্যকর্মকর্তা বলেন, গবেষণার তথ্য অনেক ফলপ্রদ হবে জাতীয়ভাবে মন্ত্রীগণ যদি এ বিষয় চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নেন তা হলে জেলেদের স্বার্থরক্ষা হবে জেলেদের তালিকা করার জন্য স্কুল শিক্ষদের দ্বায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। কিছু সুবিধাবাদী লোকজনকে জেলে সেজেছেন যা কাম্য নয় তবে শীঘ্রই এই তালিকা আবার যাচাইবাছাই করা হবে।

সভাটি সঞ্চালনা করেন কোস্ট ট্রাস্টের আঞ্চলিক টিম লিডার জহিরুল ইসলাম।

Advertisement

কমেন্টস