মোশাররফ করিমকে কটূক্তি করে পুরুষ হওয়ার চেষ্টা !

প্রকাশঃ মার্চ ২৫, ২০১৮

নিয়াজ শুভ।।

‘একটা মেয়ে তাঁর পছন্দমতো পোশাক পরবে না? পোশাক পরলেই যদি প্রবলেম হয়, তাহলে সাত বছরের মেয়েটির ক্ষেত্রে কী যুক্তি দেব? যে বোরকা পরেছিলেন তাঁর ক্ষেত্রে কী যুক্তি দেব? কোনো যুক্তি আছে?’ সহজ এই সত্যি কথাটা অনেকের হজম করতে কষ্ট হচ্ছে। হওয়াটাই স্বাভাবিক। কারণ ফরমালিন খেতে খেতে কিছু মানুষের মস্তিষ্ক সুস্থ চিন্তার জায়গাটা হারিয়েছে।

স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে অনেকেই নিজেদের স্মার্ট ভাবা শুরু করেছে। ইন্টারনেট দুনিয়া হাতের মুঠোয় পেয়ে রাজত্ব করার ধান্দায় মূর্খতার পরিচয় দিতে মত্ত লোকের সংখ্যাও কম নয়। তাদের এই নোংরামির খেলায় আপনি, আমি যে কেউ পড়তে পারে। তারকা হলে তো কথাই নেই। কারণ সবাই জানে তারকাদের কেন্দ্র করে কোন মন্তব্য করলে বা ভিডিও বানালে তা খুব সহজেই ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তারকাদের কেন্দ্র করে নিজেকে ভাইরাল করার এই পদ্ধতি এখন বেশ প্রচলিত।

যে বা যারা নিজেদের মহাজ্ঞানী কিংবা বিচারকের আসনে বসিয়ে মনগড়া মন্তব্য করে ভিডিওতে দাঁত দেখাই, তারা দাঁতের মর্যাদা দিতে জানে কি? মনের দিক থেকে কি তারা শালীন? তারা কি নিজের ভেতরের কামনাকে দমিয়ে রাখতে পারেন? পর্দায় আবিষ্ট মেয়েকে অন্ধকার গলিতে একাকী দেখলে কি তাদের ভেতরের পশু জেগে উঠে না? তারা কি পারেন আত্মার সাথে শরীরের যুদ্ধে শালীন থাকতে? অনেক প্রশ্নই উঠে আসবে। উঠে আসবে অনেক নাম। গোপন চাদরে ঢাকা থাকবে না জঘন্য পাপ কিংবা পাপী।

পোশাকই যদি একটা মেয়ের ধর্ষণের কারণ হয় তাহলে কেন কন্যা শিশুকে লালসার শিকার হতে হয়? কেন যৌনাঙ্গ ব্লেড দিয়ে কেটে বাচ্চা মেয়েটিকে রাতভর ধর্ষণ করা হয়? সত্যিই কি এটা পোশাকের দোষ নাকি আমাদের সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি? আমরা কি আমাদের ভেতরের লালসা দমাতে পেরেছি?

চ্যানেল ২৪ এ অভিনেতা মোশাররফ করিমের উপস্থাপিত একটি অনুষ্ঠানের এক অংশে তার কথা অনেকের বিবেকে নাড়া দিয়েছে। মনে হচ্ছে তিনি বিবেকহীন মানুষগুলোর বিবেক সত্ত্বা জাগিয়ে দিয়েছেন। বিবেক ঘুমন্ত এই মানুষগুলোকে জাগিয়ে দিয়ে মোশাররফ করিম নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মেরেছেন। তাকে শুনতে হচ্ছে বিশ্রী গালি। তিনি কি বলতে চেয়েছেন সেটি বুঝার চেষ্টা না করেই তাকে কটূক্তি করে পুরুষ হওয়ার চেষ্টা করছেন একদল বিবেকহীন।

আত্মসম্মানে আঘাত পাওয়া অনেক বিবেকহীন দেশ-বিদেশ থেকে নানা ভিডিওবার্তা দিয়েছেন। তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, কাজটি কি আপনারা বুঝে করেছেন? নাকি নেহাৎ নিজেকে ভাইরাল করার আশায় মোশাররফকে গালি দিয়ে নিজের অবস্থানের জানান দিচ্ছেন। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে এই সস্তা মাধ্যম বেছে নিয়ে আপনারা নিজেদেরই ছোট করেছেন। ক্ষুব্ধ হয়ে নয়, খোলা চোখে বিচার করুন।

সমাজে প্রচলিত আছে- পাপীকে নয়, পাপকে ঘৃণা করো। আপনারাই বলেন, কেউ যদি তার ভুল বুঝতে পেরে অনুসূচনা করে/ক্ষমা চায় তাহলে তাকে মাফ করে দেয়াই শ্রেয়। ধরে নিলাম, মোশাররফ করিম ভুল করেছেন, তিনি পাপী। কিন্তু তিনি তো সকলের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। তাহলে কেন তাকে কটূক্তি করে এই উন্মাদনা? আপনাদের প্রচলিত বাণীর প্রতিফলন কেন ঘটাচ্ছেন না?

একজন মোশাররফ করিমকে দুই টাকার অভিনেতা বলেছেন। ধরেই নিচ্ছি তিনি কাজের বিনিময়ে দুই টাকা পান। তাহলে দুই টাকার শ্রমিকের কাজ কেন আপনি দেখেন? আপনি কি তার চেয়েও কম পারিশ্রমিক পান? কিংবা এমন বার্তা দিয়ে ভিডিও পোস্ট করার জন্য কি আপনাকে এক টাকা দেয়া হয়েছে? আসলে সমাজকে অস্থির করে তুলতেই একটি মহল এমন কাজ করছে।

আমি নিজেও মোশাররফের এই ভিডিওটি বেশ কয়েকবার দেখেছি। তাকে দোষারোপ করতে নানা খুঁত ধরার চেষ্টা করেছি। তার কথায় শালীনতাভ্রষ্ট হবার নূন্যতম ইঙ্গিত পাইনি। কিন্তু ভিডিও বানানোর জন্য তাকে যেসব কটূক্তি করা প্রয়োজন তার ভাষা আমি খুঁজে পাইনি। একটি ভিডিও বানাতে পারলে হয়তো আজ আমার ভিডিওটি সস্তা হয়ে মানুষের হাতে হাতে থাকতো। এটি আমার ব্যর্থতা!

সারাদিন কর্মব্যস্ত থাকার পর ঘুমাতে যাওয়ার আগে যে মানুষগুলো বিনোদনের মাধ্যমে আপনার ক্লান্তি দূর করার চেষ্টা করে, টিভি পর্দায় যাদের দেখতে রিমোট হাতে বসে থাকেন, একবার সরাসরি দেখার আশায় অপেক্ষা করেন তাদের সম্পর্কে কথা বলার আগে সামান্য নৈতিকতার চিন্তা করেন না। অন্য অভিনেতা বা অভিনেত্রীরা যেটি পারেননি, মোশাররফ করিম সেটি করে দেখিয়েছেন। কোন কাজে মানুষ খুশি হন, আর কোন কথায় বিরক্ত হন সেটি বোঝা মুশকিল। একার পক্ষে সকলকে খুশি করাও সম্ভব না। যারা মোশাররফ করিমের বিষয়টিকে ইস্যু বানিয়ে ফায়দা নেয়ার চেষ্টায় আছেন তারা দেশ ও জাতিকে অস্থির পরিস্থিতিতে ফেলার ফন্দি এঁটেছেন।

সকলের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, পুরো ভিডিওটি মন দিয়ে শুনুন। কি বলতে চেয়েছে বুঝার চেষ্টা করুন। তারপর নিজের মতামত দিন। নিজেকে জনপ্রিয় করার ধান্দায় অন্যকে কটূক্তি করবেন না। যাকে কটূক্তি করছেন সেও আপনার আমার মতো কোন সমাজে বসবাস করে। তারও আত্মসম্মানবোধ আছে। বুঝতে হবে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই তিনি এমন একটি অনুষ্ঠান করেছেন। তাকে ভুল বুঝে যারা গালাগালি করছেন তাদের নিন্দা জানানো ছাড়া কিছু অবশিষ্ট নেই। মোশাররফ করিমের প্রতি অফুরন্ত ভালোবাসা।

কমেন্টস