বিস্ফোরণে নিভে গেল ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার স্বপ্ন; আহত কুয়েটের আরও ৩ শিক্ষার্থী

প্রকাশঃ মার্চ ২৫, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

ময়মনসিংহের ভালুকায় একটি ভবনে হঠাৎ বিস্ফোরণে খুলনা ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির (কুয়েট) এক ছাত্রর মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন কুয়েটের আরও ৩ শিক্ষার্থী। তবে কী কারণে বিস্ফোরণ ঘটেছে সেটি জানা যায়নি।

নিহতের নাম তৌহিদ (২৩)। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন দীপ্ত (২৩), শাহীন (২৩) ও হাফিজ (২৩) নামে অারও তিনজন। তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার রাত দেড়টার দিকে মাস্টারবাড়ি এলাকায় একটি ছয়তলা ভবনের ৩ তলায় হঠাৎ এই বিস্ফোরণ হয়। কুয়েটের ওই শিক্ষার্থীরা মাস্টারবাড়ি স্কয়ার ইন্ডাস্ট্রিজে ইন্টার্ন করতে ১০ দিন আগে ওই ছয় তলা ভবনের ৩য় তলা ভাড়া নেন।

নিহত তৌহিদের বাড়ি বগুড়ার শাহজাহানপুরে। এছাড়া আহত দীপ্তর বাড়ি মাগুরা, শাহীনের বাড়ী সিরাজগঞ্জ এবং হাফিজের বাড়ি নওগাঁয় বলে জানা গেছে।

অাহতদের বন্ধু নাজমুল শুভ বলেন, কী কারণে বিস্ফোরণ ঘটেছে তা এখনও জানতে পারিনি। তবে প্রাথমিক ভাবে জেনেছি গ্যাসের লাইন লিক হওয়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহত তৌহিদ ও অাহত সবাই অামার বন্ধু। অামাদের ফাইনাল পরীক্ষা শেষ। বাকি শুধু ইন্টার্নশিপ। এটা শেষ হলে সবাই ইঞ্জিনিয়ার হয়ে বের হবে।

ঢামেকে চিকিৎসাধীন তিনজনের ব্যাপারে বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, অাহত তিনজনের মধ্যে শাহিনের অবস্থা খু্বই ক্রিটিকাল। তার ৮৫ শতাংশ বার্ন হয়েছে। অপর দুজনের মধ্যে দীপ্তর ৪৪ শতাংশ এবং হাফিজের ৫৩ শতাংশ বার্ন হয়েছে।

জানা গেছে, শনিবার রাত দেড়টার দিকে বিস্ফোরণে ৩য় তলার দেয়াল ও কাঁচের দরজা-জানালা ভেঙে প্রায় ২০০ মিটার পর্যন্ত দূরত্বে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় ঘটনাস্থলে একজনের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। ভবনটির নিচতলায় ওয়ালটনের শো-রুম রয়েছে এবং অন্য ফ্লোরগুলো আবাসিক ভাড়া দেয়া।

বর্তমানে ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছে পুলিশ। খবর পেয়ে পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে অবস্থান করছেন। ঢাকা থেকে বোমা ডিস্পোজাল টিমের সদস্যরা ভালুকার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

কমেন্টস