প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেন দুর্ঘটনা রুখে দিল দুই শিশু

প্রকাশঃ ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ট্রেন ছুটে আসছে দুর্দান্ত গতিতে। এর খানিকটা আগে এই লাইন দিয়ে চলে গেছে আরেকটি ট্রেন। জমিতে থেকে ফিরছিল দুই শিশু। তারাি দেখতে পেল আগের ট্রিনটি যাওয়ার পর লাইন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এরই মধ্যে ছুটে আসছে আরেকটি ট্রেন। নিশ্চিত দুর্ঘটনার সম্ভাবনা।তখনই উপস্থিত বুদ্ধির ব্যবহার করে তারা।

সোমবার সকাল ৯টার দিকে রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় আড়ানী স্টেশন থেকে কিছুটা দূরে ঝিনা রেলগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এই দুই শিশু হলো ঝিনা গ্রামের সুমন আলীর ছেলে সিহাবুর রহমান (৬) ও শহিদুল ইসলামের ছেলে টিটোন আলী (৭)।

আড়ানী স্টেশনমাস্টার নয়ন আহম্মেদ বলেন, সকাল সোয়া আটটার দিকে প্রথম কমিউটার ট্রেন পার করি। এরপর সিল্কসিটি ট্রেন পার হয়। এই ট্রেন পার হওয়ার সময় ঝিনা রেলগেটে বিকট শব্দ হয়। দুই শিশু রেললাইনের ওপর মাফলার টেনে ধরে। এতে ট্রেন থেমে যায়। এরপর আশপাশের মানুষ ছুটে আসে।

দুই শিশু জানায়, সকালে তারা জমি থেকে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় তারা দেখে রেল লাইন ভাঙা। সামনে ট্রেন আসতে দেখে তারা দু’জনে রেললাইনের ওপর মাফলার টেনে ধরে। এতে ট্রেনটি থেমে যায়।

আড়ানী স্টেশনের মাস্টার নয়ন আহম্মেদ জানান, তেলবাহী ট্রেনটি খুলনা থেকে রাজশাহী যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে সব ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। রেললাইন মেরামতের দুই ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ওই ট্রেনটির চালক কেএম মহিউদ্দিন জানান, দুই শিশু মাফলার দিয়ে ট্রেন থামানোর সিগন্যাল দিচ্ছে দেখে তিনি প্রথমে গুরুত্ব দেননি। ভেবেছিলেন- ট্রেন থামাবেন না। কিন্তু অনেক কাছে চলে যাওয়ার পরও ওই দুই শিশু রেললাইন থেকে সরছে না দেখে তিনি ট্রেনটি থামিয়ে দেন। এতেই দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পায় ট্রেনটি।

কমেন্টস