কিশোরীকে ‘ধর্ষণ’ দেখে রক্ষা না করে নিজেও ‘ধর্ষক’

প্রকাশঃ অক্টোবর ১৮, ২০১৭

শিহাবুল ইসলাম, রাবি প্রতিনিধি- 

রাজশাহী জেলার পুঠিয়ায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১৪ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনা দেখে ধর্ষিতাকে রক্ষা না করে ধর্ষকের সাথে যোগ দিয়ে নিজেও ধর্ষণ করলেন ক্ষুদ্রজামিরা গ্রামের আব্দুর রহিম (৪৫)।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে রাতে ওই কিশোরী বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে বুধবার দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উপজেলার পশ্চিম জামিরা গ্রামের মাহাবুলের ছেলে রনি (২৬) ও আরমানের ছেলে আব্দুর রহিম (৪৫)। এদের মধ্যে আব্দুর রহিমকে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এবং বুধবার সকালে রনিকে গ্রেফতার করা হয়।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তদন্ত রাকিবুল হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ‘ধর্ষিতা ওই কিশোরীকে পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

পুলিশ জানায়, পশ্চিম জামিরা গ্রামের মাহাবুলের ছেলে রনি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আখ খেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় ক্ষুদ্রজামিরা গ্রামের আব্দুর রহিম (৪৫) বিষয়টি দেখে ফেলে এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে সেও ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর মেয়েটি ওই রাতেই বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে পুঠিয়া থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতেই তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ওসি তদন্ত রাকিবুল হাসান জানান, ‘জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে পরীক্ষার জন্য রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

কমেন্টস