রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় জাতিসংঘের আনা প্রস্তাবে চীন ভেটো দিল, পাকিস্তান চীনের ভেটোকে সমর্থন দিল কেন?

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৭

শিমুল গুপ্ত-

রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় জাতিসংঘের আনা প্রস্তাবে চীন ভেটো দিল, পাকিস্তান চীনের এই ভেটোকে সমর্থন দিল। কেন?
রোহিঙ্গারা নিরাপত্তা না পেলে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে বসতি স্থাপন করবে। পরে একদিন তারা স্বাধীন আরাকানের জন্য যুদ্ধ ঘোষণা দিবে। তাদের এই ঘোষণায় বিশ্ব মোড়ল দেশ উস্কানি দিবে, অস্ত্র দিবে; অর্থ দিবে। পাকিস্তান ৭১ এর মনের জ্বালা মিটাতে এর থেকে ভালো সুযোগ আর পাবে না।

রোহিঙ্গা অধিকার আদায়ে ইতিমধ্যে জিহাদি সংগঠন সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু তারা মিয়ানমারের সাথে যুদ্ধ করবে শুধু তা না, বাংলাদেশের সাথেও করবে। লিখে রাখেন। তারা সেন্টমার্টিন, কক্সবাজারসহ স্বাধীন আরাকান চাইবে।

একদিকে তিন পার্বত্য জেলায় স্বাধীকারের আন্দোলন চলবে, সাথে সাথে রোহিঙ্গাদের আন্দোলন চলবে। নিজ দেশের বহুধা আগুন নিভাতে গিয়ে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক মুক্তির স্বপ্ন থেকে ছিটকে গিয়ে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রের দিকে ধাবিত হবে।

আচ্ছা পাহাড়ে এত অত্যাধুনিক অস্ত্র আসে কোথা থেকে? এত টাকা তারা পায় কোথায়? এত বিদেশি এনজিও সেখানে কি করে?ভেবেছেন কখনো?

খাল কেটে কুমির টানার কথা যারা বলছেন তাদের উদ্দেশে বলি “আবেগ দিয়ে দেশ চলে না”। রোহিঙ্গারা নিজ দেশে যাতে নিরাপত্তা নিয়ে থাকতে পারে সেটার জন্য আওয়াজ তুলুন, এই দেশে এনে আশ্রয় দেয়ার জন্য নিজের সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করবেন না।নিজের ভালো পাগলেও বুঝে!

আর যারা রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে ধর্মের নামে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলি-রোহিঙ্গা ইস্যু কিন্তু মুসলিম বৌদ্ধের মারামারি না। এটা রাখাইন আর রোহিঙ্গাদের জাতিগত সমস্যা, ধর্মীয় নয়। রোহিঙ্গাদের মধ্যে হিন্দুরাও আছে, তারাও একই নির্যাতনের স্বীকার। দয়া করে নিজ দেশে ধর্মীয় উত্তেজনা সৃষ্টির মাধ্যমে বিভাজন তৈরি করবেন না।

Advertisement

কমেন্টস