ঢাকার যানযট ও জনজট

প্রকাশঃ এপ্রিল ১৬, ২০১৭

বুলবুল আহমেদঃ

শহর হিসাবে ঢাকা, অনেক পুরনো একটি শহর। যার গোড়া পত্তন হয়েছিল প্রাই ৪০০ বছর আগে। কালের বিবর্তনে ক্রমশ পরির্বতন হয়েছে এখনও হচ্ছে। শহর সৃষ্টির সময় থেকে প্রায় ৩০০ থেকে ৩৫০ বছর অত্যন্ত সুন্দর ও সুশৃংক্ষল থাকলেও গত কয়েক দশকে ব্যাপক পরির্বতন হয়েছে। কোন কিছুর পরিবর্তন ভাল কিন্তু তার মাত্রা যদি সহনীয় পর্যায়ে থাকে।

১৮৮১ সালে ঢাকার মোট জনসংখ্যা ছিল মাত্র ৭৬ হাজারের কিছু বেশি, কিন্তু এর ১০০ বছর পর অর্থাৎ ১৯৮১ সালে মাত্র ১০০ বছরে এর জনসংখ্যা গিয়ে দাড়ায় প্রায় ৯৫ লাখ। আর এই ২০১৭ সালে এসে সেই সংখ্যা গিয়ে দাড়িয়েছে প্রায় ২.৫ কোটিতে। যা বৃদ্ধির হার প্রায় শত গুন। ঢাকা শহরে যে পরিমান জনসংখা বৃদ্ধি পেয়েছে ঠিক সেই অনুযায়ী ঢাকার আয়তন অতটা বৃদ্ধি পাইনি। ফলে ঢাকা ক্রমেই মানুষের নগরীতে পরিণত হয়েছে।

কোটির উপর লোক বাস করে এমন শহরের তালিকায় ঢাকা শহরের অবস্থান ১২ তম। ছোট আয়তনের এই ঢাকা শহরে বর্তমানে প্রতি বর্গকিলোমিটারে বাস করে প্রায় ৩৪ হাজার লোক। যা ইতিহাসে বিরল, বসবাসের জন্য যে পরিবেশ অত্যান্ত অমানবিক। এবং আরও উদ্বেগের কারন প্রতি বছর ঢাকা শহরের এই জনস্রোতে যুক্ত হচ্ছে আরও প্র্যায় ৯ লাখ লোক। র্পযাপ্ত লোক বাস করার করনে প্রয়োজন পড়ছে র্পযাপ্ত যানবহনের। তাই প্রয়োজনের তাগিদেই রাস্তায় নামছে নতুন নতুন যানবাহন। আর সেই কারনে ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে যানযটের পরিমান। যা ক্রমশও তিব্র থেকে তিব্রতর হচ্ছে। সাথে আছে পর্যাপ্ত রাস্তার সমস্যা। একটি আধুনিক শহরে যাতায়াতের জন্য রাস্তা থাকার প্রয়োজন মোট শহরের আয়তনের ২৫%। কিন্তু ঢাকা শহরের মোট রাস্তার পরিমান শহরের তুলনায় মাত্র ৭%। তার উপর রাস্তায় গাড়ি পার্কিং, অবৈধ দোকান, বাড়ী তৈরির উপকরন রাখায় নষ্ট হচ্ছে আরও ১% জায়গা। বাঁকি ৬% রাস্তায় যানযট হওয়াটাই স্বভাবিক। এর সাথে পাল্লা দিয়ে বড়ছে বাক্তিগত গাড়ীর সংখা। প্রতি বছর বাক্তিগত গাড়ীর সংখা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সরকারি হিসাব অনুযায়ী প্রতিদিন শুধু মাত্র ঢাকার রাস্তায় যুক্ত হচ্ছে ২৮০-৩২০ টি ব্যাক্তিগত গাড়ী । প্রতিদিন যে সংখায় ব্যাক্তিগত ও যাত্রীবাহী নতুন গাড়ী রাস্তায় নামছে। ঠিক সেই তুলনায় পুরনো ও ফিটনেস বিহীন গাড়ী উঠানো হচ্ছে না ফলে ক্রমশ যানযট তিব্র থেকে অরও তিব্রতর হচ্ছে। আর ফিটনেস বিহীন গাড়ীর কালো ধোঁয়ায় ক্রমশও শহরের বাতাসে বেড়ে চলেছে কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমান। এর ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছে পুরো নগর বাসী। এভাবে যদি গাড়ীর সংখ্যা বাড়তে থাকে তাহলে ২০২৩ সাল নাগাত রাস্তায় গাড়ী চালানো তো দুরের কথা, গাড়ী রাখার জায়গা টুকুও থাকবে না।

যানযট ও জনজট এর কারনে অনেক আগে থেকেই ঢাকাকে বসবাসের অযোগ্য ঘোসণা করা হয়েছে। আর এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যৎ ঢাকা বাসীকে আরও কিছু ভয়ঙ্কর সমস্যার সামনে দাঁড় করিয়ে দিবে। যা থেকে উত্তরন প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে।

 

Advertisement

কমেন্টস