‘ভারত বাংলাদেশকে একেবারে পুরনো যুদ্ধাস্ত্র বিক্রি করবে’

প্রকাশঃ মার্চ ১৬, ২০১৭

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন দিল্লি সফরে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে দুই দেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা চুক্তি। সেদেশের অন্যতম বিরোধী দল বিএনপির সরাসরি এই চুক্তির বিরোধিতা করছে।

তাদের দাবি, বাংলাদেশের কাছে ভারত একেবারে পুরনো আমলের অস্ত্র বিক্রি করতে চায়।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ভারতের দিকে আঙুল তুলে বলেন, ‘ভারত ২৫ বছর মেয়াদী প্রতিরক্ষা চুক্তি যে প্রস্তাব দিয়েছে এর মাধ্যমে তারা বাংলাদেশে তাদের মিলিটারি হার্ডওয়্যার বিক্রি করতে চায়।

তাঁর মতে, ভারতের একজন প্রাক্তন সেনাপ্রধান একসময় বলেছিলেন-ভারতের সামরিক অস্ত্রসম্ভার সেকেলে, আধুনিক প্রযুক্তি থেকে অনেক দূরে, এগুলো মানসম্মত নয়। ভারত নিজেই হচ্ছে সামরিক সরঞ্জাম আমদানিকারক দেশ। সেক্ষেত্রে ভারত কী ধরণের সমরাস্ত্র বাংলাদেশে রফতানি করবে সেটিই এখন বড় প্রশ্ন।’ যদিও বিএনপির এই নেতার বক্তব্য মোটেই গুরুত্ব দিয়ে দেখছে না ভারত।

কারণ, খালেদা জিয়ার দল যে দুই দেশ অর্থাৎ ভার‍ত-বাংলাদেশের মধ্যে সম্পর্ক নষ্ট করতে চাইছে, তা আগেই অভিযোগ এনেছে প্রধানমন্ত্রী হাসিনার দল আওয়ামী লিগ।

এই অভিযোগ জানানোর পাশাপাশি বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আরও অভিযোগ করেন যে, প্রতিরক্ষা চুক্তির প্রস্তাব দেওয়ার পেছনে ভারতের অন্য উদ্দেশ্য আছে। বাংলাদেশের মানুষ তা উপলব্ধি করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘ভারতের কাছ থেকে সামরিক হার্ডওয়্যার আমদানি করলে সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হবে ভারতীয় প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার এক্সটেনশন মাত্র। এই চুক্তি হলে ভারত অস্ত্র কেনার শর্তে বাংলাদেশকে ৫০ কোটি মার্কিন ডলার লাইন অফ ক্রেডিট দেবে। অর্থাৎ এই অর্থ দিয়েই ভারত থেকে অস্ত্র কিনতে হবে। এটা নাকি ভারতের কৌশল ছাড়া কিছু নয় বলে দাবি তাঁর।

সূত্র- কলকাতা২৪x৭

Advertisement

কমেন্টস