যুবলীগ নেতাকে সভাপতি করায় অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

ক্রাইম ডেস্ক।।

গতকাল শনিবার নাটোর সদর উপজেলার কাফুরিয়া ডিগ্রি কলেজে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের সামনে অধ্যক্ষ এস এম সাইদুর রহমানকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিনকে ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি করায় এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায়  নাটোর থানায়  বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের নাটোর জেলা সভাপতি শাহ আলম ও তাঁর বন্ধুদের বিরুদ্ধে  লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

নাটোর সদর থানা ও প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে  কাফুরিয়া ডিগ্রি কলেজ ব্যবস্থাপনা কমিটির মেয়াদ শেষ হলে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। রুহুল আমিনকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সাংসদ মো. শফিকুল ইসলামের নির্দেশে ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। ঘটনাটির খবর ছড়িয়ে পরলে গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে  স্থানীয় কাফুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের নেতা ইলিয়াস হোসেনের ছেলে শাহ আলম, একই গ্রামের আবুল হোসেন ও মো. হারুন এবং   দস্তানাবাদ গ্রামের বাচ্চু মিয়াসহ ২০ থেকে ২৫ জন কলেজে আসে উপস্থিত হন। এসময় তারা অধ্যক্ষের অফিসে গিয়ে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের সামনে তাকে গালাগালি শুরু করে। তারপর টেনেহিঁচড়ে তাকে কলেজ থেকে বের করে দেওয়া হয়। স্থানীয় সাংসদ মো. শফিকুল ইসলাম এবং রুহুল আমিনকে বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে জানান কলেজটির অধ্যক্ষ।

ঘটনায় অভিযুক্ত শাহ আলমের কাছে বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন , তার প্রতিষ্ঠানের সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার কথা ছিল। এ বিষয়ে স্থানীয় সাংসদ একটি ডিও লেটারও পাঠিয়েছিলেন তার কাছে। কেন তাকে না জানিয়ে যবলীগের সাধারণ সম্পাদককে সভাপতি করে কমিটি গঠন হয়, তা জানার জন্য তিনি কলেজে গিয়েছিলেন বলে জানান তিনি। এসময় কাউকে  শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ অস্বীকার করন তিনি।

কমেন্টস