ঢাবিতে দুই শিক্ষার্থীকে ‘মারধর’ করলেন ছাত্রলীগ নেতা

প্রকাশঃ জানুয়ারি ১৩, ২০১৮

বিডিমর্নিং ডেস্ক-

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাব্বির হোসেন শুভ ও জহুরুল আলম  নামে দুই ছাত্রকে মারধর করে আহত করা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা হলেন ড. মুহাম্মদ শহিদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া বার্লিন ও তার কিছু অনুসারী।

আহত দুই ছাত্র বিজয় একাত্তর হলের ৪র্থ বর্ষের  ছাত্র। আহতদের মধ্যে সাব্বির হোসেন শুভ নাকে গুরুতর আঘাত পাওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিতে হয়েছে।

আহত সাব্বির হোসেন শুভ বলেন, চানখারপুলের আল মিজান হোটেলে আমরা দুইজন খেতে গিয়েছিলাম । মদ্যপ অবস্থায় একজন ছাত্র তখন দরজা আটকে দাঁড়িয়ে ছিল। ভিতরে যেতে না দেওয়া নিয়ে ওখানে তার সাথে আমাদের কথা কাটাকাটি হয়। পরে কয়েকজন অনুসারীকে নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন শহিদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া বার্লিন। একই হলের ছাত্রলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ইফতেয়ার খান হৃদয়ও সেখানে উপস্থিত ছিল। এরপর তারা আমাদের মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে কেউ একজন আমার মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

প্রতক্ষদর্শী এক ছাত্র বলেন, দূর থেকে গন্ডোগোল দেখে বিষয়টি দেখতে আসি। ওখানে এক গুরুতর আহত ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা শহিদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া বার্লিনের সাথে কথা বলার জন্য চেষ্টা করা হলে তার ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়য়ে শহিদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ বলেছেন, বসার জায়গা নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল। বিষয়টি পরে মিটমাট হয়ে গেছে। তবে আহত ওই দুই ছাত্র মিটমাটের ব্যাপরে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।  প্রক্টরের কাছে লিখিত অভিযোগ জানাবেন বলে জানিয়েছেন আহত ছাত্রদের একজন সাব্বির হোসেন শুভ।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কমেন্টস