ঈশ্বরদীতে ছিনতাই’র ২৪ ঘন্টা পর অটোরিক্সাসহ আটক ৩

প্রকাশঃ ডিসেম্বর ৬, ২০১৭

গোপাল অধিকারী, ঈশ্বরদী (পাবনা)

পাবনার ঈশ্বরদীতে অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের ২৪ ঘন্টার মধ্যে অটোরিক্সাসহ ৩ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১টায় রিফাত নামক এক সিএনজি চালককে অজ্ঞান করে তাঁর অটোবাইকটি ছিনিয়ে নিয়ে যায় যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা। আজ বুধবার (৬ ডিসেম্বর) আটকের পর বেলা ১১ টায় তাদের পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আটকৃতরা হলেন, রাজশাহীর বন্ধগেট- বিলসিমলা এলাকার দরবার সরদার (মৃত)’র ছেলে সেলিম রেজা (৩২), রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার দেবীসিং পাড়ার মহিদুল চৌকিদারে (মৃত)’র ছেলে ওবায়দুর রহমান (৩০), নাটোরের লালপুর উপজেলার কচুয়া কারিগর পাড়ার হাতেম আলী (মৃত)’র ছেলে সুমন আলী ওরফে একাব্বর (২৫)।

ছিনতাইকারী দলের সদস্য ওবায়দুর জানান, সে পেশায় একজন কসমেটিক্স বিক্রেতা। মঙ্গলবার সকাল ৮টার সময় ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে মধুমতি একপ্রেস ট্রেন থেকে নামার পর ঐ দুই সদস্যের সাথে পরিচয় হয়। কিছুসময় পর বেলা ১১ টার সময় তারা পাবনায় বেড়াতে যাবে বলে তাঁর অটোরিক্সাটি রিজার্ভ ভাড়া নেয়। পরে পাবনা থেকে পাকশী রুপপুর মোড় হয়ে ঈশ্বরদী যাবে বলে জানায়। ঈশ্বরদী ইপিজেড এর সামনে আসলে অটোরিক্সা থামিয়ে চেতনানাশক ঘুমের ট্যাবলেট মিশ্রিত বিস্কুট খেতে দেয়। কিছুসময় পর রিফাত হোসেন (১৮) অটোবাইক চালক অজ্ঞান হয়ে পরলে তাকে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে অটোরিক্সাটি ছিনিয়ে নিয়ে যায় যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা। পরে স্থানীয় এলাকাবাসী অটোবাইক চালককে উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করে। সে পাবনা শহরের গোবিন্দা এলাকার জিয়া হোসেনের ছেলে।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) রুহুল আমিন জানান, অটোরিক্সাটি উদ্ধার করে থানায় রাখা হয়েছে। ১৯৬০ সালের দণ্ডবিধি আইনে ৪২৭/৩৭৯/৪১১ ধারার চুরি/অবৈধ পন্থায় ঘুমের চেতনানাশক ঔষধ খাইয়ে ছিনতাই মামলা নথিভুক্ত করে তাদের পাবনা জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কমেন্টস