ঢাবির ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসে জালিয়াতিতে আটক ১২, ১৫ দিনের কারাদণ্ড

প্রকাশঃ অক্টোবর ১৩, ২০১৭

নুর হোসেন ইমন, ঢাবি প্রতিনিধি-

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় মাস্টারকার্ডের মত ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করে জালিয়াতির ঘটনায় ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) সকালে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে তাদের আটক করে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ঢাকা জেলা প্রশাসকের একটি প্রেস রিলিজ থেকে জানা যায়, মাস্টারকার্ডের মত ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসের অতিক্ষুদ্র তারবিহীন হেডফোন কানে ঢুকানো ছিল। ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহীদ এলাহী। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে প্রত্যেককে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সরেজমিনে দেখা যায় পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ইলেকট্রনিকস ডিভাইসসহ আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আটককৃতরা হলো, আল ইমরান, নূরে আলম আরিফ, সৌমিকা প্রতিচি সাত্তার, আরিফা বিল্লাহ তামান্না, মো. শাহ পরান, মো. আবুল বাশার, নাহিদ হাসান কাউছার, মো. তানভির হোসাইন, মো. রাফিকুল ইসলাম, খন্দকার সিরাজুল ইসলাম, এস এম জাকির হোসাইন, মো. আবু হানিফ নোমান

আটককৃতদের মধ্যে মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উদয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শেখ বোরহান উদ্দিন কলেজ ও আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সদ্য এইচএসসি পাস করা কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী ছিলেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ এম আমজাদ, সহকারী প্রক্টর মো. সোহেল রানা, ড. এ কে লুতিফুল কবীর, মাইনুল ইসলাম।
এরআগে আজ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এবং ক্যাম্পাসের বাইরের ৮৭টি কেন্দ্রে এক যোগে পরীক্ষা শুরু হয়। এ বছর ‘ক’ ইউনিটের অধীনে বিজ্ঞান অনুষদে ১৭৬৫টি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছে ৮৯,৫০৬জন।

কমেন্টস